কায়সার হামিদ মানিক: কক্সবাজারের টেকনাফে পাহাড় ধসে ৫ জন,উখিয়ায় পানির স্রোতে ভেসে যাওয়া ৩ জন ঈদগাঁওতে মাছ ধরতে গিয়ে ৩ জন নিহতের খবর পাওয়া গেছে।

কক্সবাজারের টেকনাফে পাহাড় ধসে একই পরিবারের ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (২৮ জুলাই) দিবাগত রাত পৌনে ২টার দিকে উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের ভিলেজারপাড়ায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় পাহাড় ধসে মাটির নিচে চাপা পড়ে যায় ওই এলাকার সৈয়দ আলমের পাঁচ সন্তান। সেখান থেকে প্রথমে দুই জন ও পরে তিন জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহতরা হলেন- ভিলেজার পাড়ার সৈয়দ আলমের সন্তান- আব্দু শুক্কুর (১৬) মো. জোবাইর (১২) আব্দুর রহিম (৫) কোহিনুর আক্তার (৯) ও জয়নবা আক্তার (৭)।

হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলী বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পাহাড় ধসের ঘটনায় ৪নং ওয়ার্ডের সৈয়দ আলমের তিন ছেলে ও দুই মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। বাড়ির পাশের পাহাড় ধসে পড়ায় এ দুর্ঘটনা ঘটেছে।

তিনি রাত ৩ টায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বলেন, টানা ভারী বর্ষণে হ্নীলা ইউনিয়নে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তলিয়ে গেছে লাখ লাখ টাকার লবণ। ভেঙে গেছে শত শত ঘর-বাড়ি।

এর আগে মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) দুপুরে উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় পাহাড়ধসে ৫ রোহিঙ্গার মৃত্যু হয়। ওই ঘটনায় মাটি চাপায় আহত হয় আরো ৫ জন। আহতরা স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ছাড়াও মহেশখালী উপজেলার ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের উত্তর সিপাহী পাড়ায় আনসারুল করিমের মেয়ে মুর্শিদা আক্তার (১৪) এবং টেকনাফের হোয়াইক্যং ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা রকিম আলী (৫০) নামের বৃদ্ধ পাহাড় ধসে নিহত হন।

এদিকে উখিয়ায় তিন দিন ধরে টানা ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলের পানিতে ভেসে যাওয়া ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে আজ বুধবার।

উদ্ধারকৃত মরদেহ গুলোর মধ্যে একজন পালংখালী ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের চোরাখোলা এলাকার বাসিন্দা মৃত অলি আহমদের ছেলে আব্দুর রহমান (৪৫)।

স্থানীয়রা জানিয়েছে সে গতকাল মঙ্গলবার পানিতে ভেসে যায়। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে তার মরদেহ চোরাখোলা খালের পাড় থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

অপরদিকে ২৭ জুলাই বিকেল ৫ টার দিকে মাসকারিয়া খালের পানিতে পড়ে নিখোঁজ হয় রাজাপালং ধইল্যার ঘোনা এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে আকবর আলী (৩১)।

২৮ জুলাই মঙ্গলবার সকাল ৯টা দিকে মাসকারিয়ার বিলের পানিতে অনেক খোঁজাখুজির পর তার লাশ পাওয়া গেছে এমনটি সূত্র নিশ্চিত করেছে।

একই ভাবে মঙ্গলবার রাজাপালং ইউনিয়নের দুছরীখাল সাঁতরে পার হওয়ার সময় ভেসে যায় মালিয়ারকুল এলাকার মোঃ ইসলামের ছেলে মোঃ রুবেল (২২)।

বুধবার হলদিয়াপালং ইউনিয়নের রুমখা কুলাল পাড়ার স্থানীয়রা মৃত দেহ দেখতে পেয়ে রুবেলের পরিবারকে খবর দিলে বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে তার লাশ উদ্ধার হয় বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

তিনজনের মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি সত্যতা নিশ্চিত করে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিজাম উদ্দিন আহমেদ বলেন, নিহতদের পরিবারকে সরকারের পক্ষ থেকে নগদ অর্থ ও প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করা হবে।

একইদিন ঢলের পানিতে মাছ ধরতে গিয়ে কক্সবাজারের ঈদগাঁওতে নিখোঁজ তিন জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। রামু ফায়ার সার্ভিস ও চট্টগ্রাম থেকে আসা ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল দীর্ঘ প্রচেষ্টা চালিয়ে বুধবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে মৃতদেহগুলো উদ্ধার করে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঈদগাঁও সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ আলম।

তিনি জানান, বুধবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় বাস স্টেশনের পূর্ব পাশে দরগাহ এলাকায় ঢলের পানিতে মাছ ধরতে যান, একই গ্রামের মোহাম্মদ শাহাজাহানের দুই ছেলে মোহাম্মদ ফারুক (২৬) ও দেলোয়ার হোসেন (১৫) এবং আবছার কামালের ছেলে মোহাম্মদ মোরশেদ (১৪)।
টানা বর্ষণে ও পাহাড়ি ঢলের পানিতে তখন স্রোতের টানে তারা তলিয়ে যায়। ওই সময় স্থানীয়রা তাদের উদ্ধারে তৎপরতা চালায় এবং ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়।

রামু ফায়ার ষ্টেশন কর্মকর্তা সৌমেন বড়ুয়া বলেন, প্রবল বর্ষণ ও ঢলের কারণে উদ্ধার কাজে ব্যঘাত ঘটেছে। তাদের উদ্ধারে চট্টগ্রাম থেকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল আসে। অবশেষে মৃত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।

Previous articleটাঙ্গাইলে রাস্তায় নিন্মমানের ইট দিয়ে কাজ করার অভিযোগ, স্থানীয়দের বাধা
Next articleবেনাপোলে সন্তানকে গুমসহ বসতভিটা দখল করে ঘর নির্মানের অভিযোগ সুদখোরের বিরুদ্ধে
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।