কায়সার হামিদ মানিক: রেশন কার্ড নিয়ে আপত্তি জানানো টেকনাফ নয়াপাড়ার নিবন্ধিত রোহিঙ্গারা আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের সদস্যদের ওপর হামলা চালিয়েছে। এতে এপিবিএনের ১২ সদস্য আহত হয়েছেন।

রোববার (১ আগস্ট) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ফাঁকা গুলিবর্ষণ করা হয়।

জানা গেছে, রেশন কার্ড নিয়ে কয়েক দিন ধরে অসন্তোষ বিরাজ করছে কক্সবাজারের টেকনাফের নয়াপাড়া নিবন্ধিত শরণার্থী শিবিরের রোহিঙ্গাদের মাঝে। গেল এক মাস ধরে রেশন নিতেও আসেনি তারা। রোববার (১ আগস্ট) সকাল থেকে ক্যাম্পে বিক্ষোভ শুরু করে তারা। দুপুরে বিভিন্ন ব্লকে চলমান বিক্ষোভ ঠেকাতে রোহিঙ্গাদের শান্ত করার চেষ্টা করেন আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের সদস্যরা। কিন্তু উল্টো রোহিঙ্গারা এপিবিএন সদস্যদের লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছোড়ে।

কক্সবাজার ১৬ আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক এসপি তারিকুল ইসলাম বলেন, সকাল থেকে বিক্ষোভ শুরু করে রোহিঙ্গারা। বিক্ষোভকারীদের শান্ত করতে গেলে এপিবিএনের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে আমাদের ১২ সদস্য আহত হন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পাঁচ রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, মূলত এসব রোহিঙ্গারা ১৯৯২ সালে মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আসে। তারপর তাদের শরণার্থী হিসেবে নিবন্ধন করে সরকার। এরপর নানা ভাবে তাদের সহযোগীতা দিত বিভিন্ন সংস্থা বা সরকার।

২০১৩ সাল থেকে জাতিসংঘের ‘বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি’ (ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম বা ডব্লিউএফপি) তাদের খাদ্যসহায়তা দিয়ে আসছে। এ জন্য ডব্লিউএফপির কর্মকর্তারা আলাদা করে তালিকা করেন নিবন্ধিতদের। কিন্তু চলতি জুলাই মাসের শুরু থেকে পুরোনো রোহিঙ্গাদের খাদ্যসহায়তার কার্ড নিয়ে নেয় সংস্থাটি। ২০১৭ সালে আসা নতুন রোহিঙ্গাদের সঙ্গে তাদের সংযুক্ত করে আবার কার্ড বিতরণ করা হয়। কিন্তু সে কার্ড নিয়ে আপত্তি জানিয়ে এক মাস ধরে রেশন নিচ্ছে না পুরোনো রোহিঙ্গারা।

Previous articleকলাপাড়ায় জলাবদ্ধতা নিরসনে কৃষক সমাবেশ
Next articleউখিয়ায় ইয়াবাসহ মাদককারবারী আটক
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।