বাংলাদেশ প্রতিবেদক: মুলাদীতে চাঁদার দাবীতে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ৫ জনকে কুপিয়ে জখম করেছে দুর্বৃত্তরা। গত শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার কাজিরচর ইউনিয়নের রাঘুয়া কাজিরচর এলাকায় মুক্তিযোদ্ধা আ. মন্নান ফকিরের বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে।

থানায় চাঁদা চাওয়ার অভিযোগ করায় একই এলাকার সবুজ খানের ছেলে রাব্বী খানের নেতৃত্বে এই হামলা করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের আহত সদস্যরা। মুক্তিযোদ্ধা আ. মন্নান ফকির জানান, শুক্রবার তার ছেলে আল মিরাজ সজিব এলাকার মসজিদে জুমার নামাজ পরতে যায়। নামাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে রাব্বী খান ও তার সহযোগীরা পথরোধ করে টাকা দাবি করে। আল মিরাজ টাকা দিতে অস্বীকার করলে তাকে মারধর করে রাব্বী খান। ওই ঘটনায় মন্নান শুক্রবার বিকেলে মুলাদী থানায় রাব্বী খানের বিরুদ্ধে অভিযোগ দেন। অভিযোগের ভিত্তিতে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে তদন্তে যান এতে ক্ষিপ্ত হন রাব্বী খান ও তার সহযোগীরা। আ. মন্নান ফকির আরও জানান, শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে রাব্বী খান, তার পিতা সবুজ খান, সহযোগী ইমরান খান, নজরুলসহ ৫/৭জন রামদা ও লাঠিসোটা নিয়ে তাঁদের বাড়িতে হামলা চালায়।

হামলাকারীরা ইমরান ফকির, আল মিরাজ, জসিম ফকির, শাহাবুদ্দিন ফকির, আলমতাজ বেগমকে এলোপাথারি কুপিয়ে মারাতœক জখম করে। আহতদের ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা এসে তাদের উদ্ধার করে মুলাদী হাসপাতালে নিয়ে আসেন। এদের মধ্যে আলমতাজ বেগম ইমরান ও আল মিরাজের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে নেওয়া হয়। অবস্থার উন্নতি না হলে রাতেই তাদের ঢাকায় জাতীয় অর্থোপেডিক (পঙ্গু) হাসপাতালে নিয়ে যান স্বজনরা। এঘটনায় শনিবার দুপুরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে সবুজ খানকে বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করেছে। ঘটনার পর থেকে রাব্বী খান ও তাঁর সহযোগীরা পলাতক রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। মুলাদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস.এম মাকসুদুর রহমান জানান, হামলায় ঘটনায় মামলা হয়েছে। একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Previous articleকালিহাতীতে ৫০তম জাতীয় সমবায় দিবস পালিত
Next articleমুলাদীতে পৌর মেয়রকে সংবর্ধণা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।