বাংলাদেশ প্রতিবেদক: থানা ও উপজেলা ভাংচুরের অভিযোগে কারাগারে থাকা সেই ইশারত হোসেন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। ফরিদপুরের সালথায় দ্বিতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত ভোটে স্বতন্ত্রপ্রার্থী হিসেবে জয় লাভ করেন।

এ ছাড়া ওই উপজেলায় নৌকা প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগের মনোনীত ৫ জন চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন। অন্যদিকে তিনটি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচিত হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের ৭৬টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলার ১ নম্বর রামকান্তপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো: ইশারত হোসেন (টেলিফোন) প্রতীকে ৩ হাজার ৩৪৮ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী কামাল হোসেন (টেবিল ফ্যান) প্রতীক পেয়েছেন ১ হাজার ৭৯২ ভোট।

২ নম্বর যদুনন্দী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী রফিক মোল্যা (মোটরসাইকেল) প্রতীকে ৩ হাজার ৭৫৯ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী আ: রব মোল্যা (নৌকা) প্রতীক পেয়েছেন ৩ হাজার ৬২৭ ভোট।

৩ নম্বর গট্টি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাবিবুর রহমান লাভলু (নৌকা) প্রতীক ৮ হাজার ০২৬ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী খন্দকার রেজাউর রহমান চয়ন (মোটরসাইকেল) প্রতীকে পেয়েছেন ৫ হাজার ১১৫ ভোট।

৪ নম্বর ভাওয়াল ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে (দ্বিতীয় বার) মো: ফারুকুজ্জামান ফকির মিয়া ৮ হাজার ৮৭৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী সোহেল রানা ইমন (আনারস) প্রতীক পেয়েছেন ১ হাজার ৬৭৬ ভোট ও জাকের পার্টির মনোনীত প্রার্থী আবুল হাসান (গোলাপ ফুল) প্রতীকে পেয়েছেন ৮২৫ ভোট।

৫ নম্বর সোনাপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী খায়রুজ্জামান বাবু (নৌকা) প্রতীকে ৬ হাজার ৭৪০ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী সোহেল রানা ফরহাদ (আনারস) প্রতীকে পেয়েছেন ৫ হাজার ৭৮৬ ভোট।

৬ নম্বর আটঘর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী শহীদুল হাসান খান সোহাগ (নৌকা) প্রতীকে ৬ হাজার ৮৮২ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহিনুর রহমান (মোটরসাইকেল) প্রতীক পেয়েছেন ৫ হাজার ৮৪৫ ভোট।

৭ নম্বর মাঝারদিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আফছার উদ্দিন (নৌকা) প্রতীকে ৭ হাজার ২৬৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আ: মতিন উজ্জল (আনারস) প্রতীক পেয়েছেন ৩ হাজার ৭৯৫ ভোট।

৮ নম্বর বল্লভদি ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী খন্দকার সাইফুর রহমান শাহীন (আনারস) প্রতীকে ৫ হাজার ৪০১ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ প্রার্থী নুরুল ইসলাম (নৌকা) প্রতীক পেয়েছেন ৫ হাজার ৩৭৯ ভোট।

এছাড়াও উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে সাধারণ সদস্য পদে ৭২ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ২৪ জন নির্বাচিত হয়েছেন।

Previous articleসীমান্তে আবারও বিএসএফের গুলি, নিহত ২ বাংলাদেশী
Next articleফতুল্লায় বিস্ফোরণে উড়ে গেছে ছাদ, নিহত ২
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।