নিহত প্রবাসী আমিনুল

সাজ্জাদ হৃদয়: কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় ইতালি ফেরত প্রবাসীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে এক নারী বিরুদ্ধে। মরিচ বাটার শিল দিয়ে মাথায় আঘাত করে হত্যার দাবি করা হয় অভিযোগে। ঘটনার পর অভিযুক্ত ওই নারী থানায় আত্মসমর্পণ করেছেন।

গত শুক্রবার দিবাগত রাতে জেলা শহরের শোলাকিয়ার নীলগঞ্জ রোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত প্রবাসী দেড় মাস আগে ইতালি থেকে দেশে আসেন। তাঁর নাম আমিনুল আলম এবং অভিযুক্ত নারীর নাম তাসলিমা।

জানা যায়, জেলা শহরের শোলাকিয়া নীলগঞ্জ রোডের সেবাশ্রম এলাকায় হত্যাকাণ্ডের শিকার প্রবাসী আমিনুল আলমের বাসায় দুই বছর আগে অভিযুক্ত তাসলিমা তার স্বামী সন্তানসহ ভাড়ায় থাকতেন এবং সে সময় আমিনুলের সঙ্গে পরিচয় হয়।

কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশ অভিযুক্ত তাসলিমার বরাত দিয়ে জানায়, শুক্রবার রাতে প্রবাসী আমিনুল অভিযুক্ত তাসলিমার বাসায় ডুকে ধর্ষণের চেষ্টা করলে তিনি মরিচ বাটার শিল দিয়ে আমিনুলের মাথায় আঘাত করে। পরে আঘাতপ্রাপ্ত আমিনুলকে ঘরে তালাবন্ধ করে সদর মডেল থানায় গিয়ে এ ঘটনা জানায় তাসলিমা। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বাসার তালা ভেঙে আহত আমিনুলকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে। কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে পাঠালে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। শনিবার ভোর ৫টার দিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করলে পথে আমিনুল মারা যায়।

এদিকে, নিহত আমিনুল আলমের পরিবারের সদস্যরা জানান, টাকার জন্য আমিনুলকে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকারী তাসলিমার বিচার চেয়েছেন নিহতের পরিবার।

এ বিষয়ে কিশোরগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বক্কর বলেন, থানায় এসে প্রবাসী আমিনুলকে হত্যার কথা নিজেই স্বীকার করেছেন তাসলিমা। হত্যাকান্ডের ঘটনায় তদন্ত অব্যাহত আছে। অভিযুক্ত ঘাতক তাসলিমাকে আটক করেছে পুলিশ।

Previous article‘ওমিক্রন’ থেকে বাঁচাতে স্ত্রী ও দুই সন্তানকে হত্যা করলেন চিকিৎসক
Next articleওবায়দুল কাদেরকে কেন চিকিৎসার জন্য বিদেশ নেয়া হয়েছিল, প্রশ্ন রিজভীর
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।