আবুল কালাম আজাদ: টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে পরীক্ষা শেষে লাশ হয়ে বাড়ি ফিরলো আখি আক্তার(১৮) নামের এক কলেক ছাত্রী।বৃহস্পতিবার দুপুরে মির্জাপুর-পাথরঘাটা আঞ্চলিক সড়কের ত্রিমোহন ফিরিঙ্গিপাড়া নামকস্থানে সিএনজি চালিত অটোরিকশা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বংশাই নদীতে ডুবে আখির মৃত্যু হয়।

টাঙ্গাইল ফায়ার সার্ভিসের একটি ডুবুরীদল বেলা দুইটার দিকে তার লাশ উদ্ধার করে।নিহত আখি মির্জাপুর উপজেলার বাঁশতৈল ইউনিয়নের গায়রাবেতিল গ্রামের আব্দুল মিয়া ও উত্তর পেকুয়া জাগরনী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা ফরিদা ইয়াসমিনের মেয়ে।এ বছর বাঁশতৈল খলিলুর রহমান কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষা দিচ্ছিলো। সকালে মায়ের সঙ্গে মামা ফরহাদ মিয়ার সিএনজি চালিত অটোরিকশায় মির্জাপুরে পরীক্ষা দিতে আসে। পরীক্ষা শেষে একই সিএনজিতে বাড়ি যাওয়ার পথে দুপুর ১২টার দিকে মির্জাপুর-পাথরঘাটা আঞ্চলিক সড়কের ত্রিমোহন ফিরিঙ্গিপাড়া নামকস্থানে এসে একটি রিকশাকে ওভারটেক করার সময় অপর একটি মোটরসাইকেলের সাথে ধাক্কা লেগে সিএনজিটি ১০০ ফুট গভীরে বংশাই নদীতে পড়ে ডুবে যায়।পরে স্থানীয়রা চালক ফরহাদ মিয়া, আখির মা ফরিদা ইয়াসমিন ও অটোরিকশাটি উদ্ধার করলেও আখি নিখোঁজ হয়।পরে টাঙ্গাইল ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলের সদস্যরা এসে উদ্ধার কাজ চালিয়ে দুপুর দুইটার দিকে আখির লাশ উদ্ধার করেন। মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ রিজাউল হক দিপু জানান,আইনি প্রক্রিয়া শেষে তার লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তরর করা হয়েছে।

Previous articleসেই সার্জেন্ট মহুয়ার বাবার পাশে ডিএমপি কমিশনার
Next articleদেশের অগ্রগতি জনগণের কাছে তুলে ধরা গণমাধ্যমের নৈতিক দায়িত্ব: তথ্যমন্ত্রী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।