শফিকুল ইসলাম: জয়পুরহাটে মাদক মামলায় ফাঁসানোর ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়ের সময় উত্তম কুমার ঘোষ (৪০) নামে পুলিশের ভুয়া এক উপ-পরির্দশককে (এসআই) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার জয়পুরহাট সদর থানায় মামলা দায়েরে পর তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। এর আগে শুক্রবার বিকেলে তিন ব্যক্তিকে আটকে রেখে তাঁদের মাদক মামলায় ফাঁসানোর ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়ের সময় জয়পুরহাট শহরের কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দান সংলগ্ন খাদ্যগুদাম সড়ক থেকে তাঁকে আটক করা হয়েছিল।

আটক উত্তম কুমার ঘোষ নামে জয়পুরহাট পৌর শহরের বঙ্গবন্ধু রোড মহল্লার মৃত ধীরেন্দ্র নাথ ঘোষের ছেলে।
জয়পুরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম আলমগীর জাহান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

থানা-পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার তৌকির আহামেদ (৩১) তাঁর দুই বন্ধু ব্যক্তিগত কাজে জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলা সদরে গিয়েছিলেন। শুক্রবার বিকেলে তাঁরা বাসযোগে জয়পুরহাটে ফিরছিলেন। উত্তম কুমার ঘোষসহ তিন জন ব্যক্তি ওই বাসে ছিলেন। তাঁরা নিজেদের পুলিশের এসআই পরিচয় দিয়ে বাসের ভেতর তৌকির আহামেদসহ তাঁর দুই বন্ধুর কাছে মাদক আছে বলে গ্রেপ্তারের ভয়ভীতি দেখান। শুক্রবার বিকেল চারটায় বাসটি জয়পুরহাট শহরের পাঁচুর মোড়ে পৌঁছায়। সেখানে পুলিশের এসআই পরিচয় দেওয়া উত্তম কুমার ঘোষসহ তিন ব্যক্তি ওই তিন জন বাসযাত্রীকে জিম্মি করে শহরের কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানের পাশে খাদ্যগুদাম সড়কে নিয়ে আসেন। এরপর পুলিশের এসআই পরিচয় দেওয়া উত্তম কুমারসহ তিন ব্যক্তি মাদকের মামলায় ফাঁসানোর ভয় দেখিয়ে বাসযাত্রী তিন জনের কাছ থেকে ১৮০০ টাকা কেড়ে নেন। এরপর তাঁরা ছেড়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে আরও বিশ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেন। বাসের তিন যাত্রী তাঁদের অভিভাবকদের কাছে ফোন করে ঘটনাটি খুলে বলে পুলিশের এসআই পরিচয় দেওয়া তিন জনের বিকাশ নম্বরে টাকা পাঠাতে বলেন। এরপর তৌকিরের বন্ধু শারফুল ইসলাম প্রস্রাব করার নাম করে সেখান থেকে একটু দূরে গিয়ে তাঁর মুঠোফোন থেকে জাতীয় পরিসেবা ৯৯৯ নম্বরে কল করে ঘটনাটি জানান। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছালে পুলিশের এসআই পরিচয় দেওয়া উত্তম কুমার ঘোষসহ তিন জন দৌঁড় দেন। এসময় পুলিশ উত্তম কুমারকে ধরে ফেলে। এঘটনায় তৌকির আহামেদ বাদি হয়ে উত্তম কুমারসহ পুলিশের এসআই পরিচয় দেওয়া তিন জনের বিরুদ্ধে আজ শনিবার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় উত্তম কুমারকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

জয়পুরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম আলমগীর জাহান বলেন, উত্তম কুমার ঘোষসহ আরও কয়েক জন ব্যক্তি পুলিশের ভুয়া এসআই পরিচয় দিয়ে ছিনতাই-চাঁদাবাজি করে আসছিলেন। পুলিশের এসআই পরিচয়ে উত্তম কুমার ঘোষসহ তিন ব্যক্তি শুক্রবার বিকেলে তিন ব্যক্তিকে মাদক মামলায় ফাঁসানোর ভয় দিয়ে টাকা আদায় করছিলেন। এসময় পুলিশ সেখানে গিয়ে উত্তম কুমার ঘোষকে আটক করে। উত্তমের তাঁর দুই সহযোগী পালিয়ে যায়। তাঁদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Previous articleঅবশেষে বাল্কহেডের ভেতরেই পাওয়া গেল নিখোঁজ শ্রমিক মোতালেবের লাশ
Next articleবেনাপোলে ফেনসিডিলসহ আটক ১
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।