বাংলাদেশ প্রতিবেদক: সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীতে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনা নদীর পানি সিরাজগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধ হার্ডপয়েন্টে আরো ২১ সেন্টিমিটার বেড়ে বিপৎসীমার ৩৩ এবং কাজিপুরের মেঘাই ঘাট পয়েন্টে ১৫ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ৩৭ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও অতিবৃষ্টিতে টানা ৩ সপ্তাহ ধরে পানি বৃদ্ধি পেয়ে দুটি পয়েন্টেই বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় জেলার বন্যাকবলিত ৬টি উপজেলার ৩২টি ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। এতে বিশুদ্ধ পানির অভাবসহ বিভিন্ন সঙ্কট দেখা দিচ্ছে বানভাসি মানুষদের মাঝে।

এদিকে বাঁধ অভ্যন্তরের এই পরিস্থিতিকে বন্যা বলে স্বীকার করতে অস্বীকৃতি জানালেও বন্যা মোকাবেলায় ব্যাপক প্রস্তুতি রয়েছে বলে জানিয়েছেন সিরাজগঞ্জ জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কার্যালয়।

এ বিষয়ে জেলা ত্রাণ কর্মকর্তা আকতারুজ্জামান জানান, বন্যাদুর্গত বানভাসি মানুষের মাঝে বিতরণের জন্য ইতোমধ্যেই ৯১১ টন চাল, নগদ ২০ লাখ টাকা এবং চার হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার বরাদ্দ পাওয়া গেছে। এইগুলো বিতরণের জন্য বন্যায় স্বস্ব এলাকার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের কাছ ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা চাওয়া হয়েছে।

এছাড়া চৌহালি উপজেলার ভাঙনকবলিত ২৭১ পরিবারের মধ্যে ২১ জুন শুকনো খাবার বিতরণ করা হবে বলেও তিনি জানান।

Previous articleশেষ রাতের আলাপন : আকিব শিকদার
Next articleশিমুলিয়া-মাঝিকান্দি রুটে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।