বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ঠাকুরগাঁও শহরের টাঙ্গন নদীর পাড় থেকে বস্তাবন্দি অবস্থায় হাত-পা বাঁধা এক কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয়রা তাকে প্রায় অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে।

মেয়েটির নাম মাহফুজা আক্তার (১৬)। সে দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ উপজেলার কবিরাজ এলাকার মৃত মোস্তফা কামালের মেয়ে। বর্তমানে সে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

উদ্ধারকারীদের একজন স্থানীয় সংবাদকর্মী জয় মহন্ত অলক জানান, টাঙ্গন নদীর শহররক্ষা বাঁধের উপর একটি বস্তা পড়ে আছে। এমন সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি বস্তার মুখের দিকে মেয়েটির পা বেরিয়ে ছিল। অন্যদের সহায়তায় বস্তা খুলে মেয়েটিকে বের করি। তখন মেয়েটি প্রায় অচেতন ছিল। পড়ে দ্রুত তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাই।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মেয়েটি শহরের গোবিন্দনগর খাতুনে জান্নাত কামরুন্নেসা কওমি মাদরাসায় ঈদুল আযহার কয়েকদিন আগে ভর্তি হয়। ঈদের ছুটি কাটিয়ে গত মঙ্গলবার মাদরাসায় আসে মাহফুজা। বাকি শিক্ষার্থীদের সাথে মাদরাসার আবাসিক রুমে থাকতো সে। গত রাতে সহপাঠীদের সাথে সেও ঘুমিয়ে যায়। ভোরে শিক্ষার্থীরা নামাজ পড়তে ওঠে মাহফুজাকে না পেয়ে শিক্ষকদের জানায়। বিষয়টি জানাজানি হলে নদীর পাড় থেকে তাকে বস্তাবন্দি অবস্থায় উদ্ধার করে এলাকাবাসী।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন নয়া দিগন্তকে জানান, মেয়েটি শহরের একটি মাদরাসায় পড়াশুনা করে। ঘটনার সংবাদ পেয়ে এলাকাবাসীর সহায়তায় মেয়েটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আমি হাসপাতালে গিয়ে মেয়েটির সাথে কথা বলেছি। সে জানিয়েছে, তার সাবেক স্বামী ও তার সহযোগীরা মধ্যরাতে তাকে কৌশলে মাদরাসা থেকে বের করে আনে। পরে তাকে নির্যাতন করে বস্তায় ভরে নদীর পাড়ে ফেলে রেখে যায়।

এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

Previous articleবাউবি’র এমবিএ পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ
Next articleঈশ্বরদী উপজেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত ঘোষণা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।