বাংলাদেশ প্রতিবেদক: কলাপাড়া রাজনৈতিক ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ডালবুগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ইউপি সদস্য মো.বাবুল গাজী(৫২) এবং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সদস্য মো.হারুন হাওলাদার(৫২)কে কুপিয়ে ও হাতুরি দিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে বিএনপির সন্ত্রাসীরা।

বুধবার রাপশ মহিপুর থানাা মেহেরপুর গ্রামে এঘটনা ঘটে। রক্তাক্ত অবস্থায় উভয়কে প্রথমে কুয়াকাটা তুলাতলী হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার ডাক্তার প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে আশঙ্কা জনক অবস্থায় দ্রুত বরিশাল সেবাচিম হাসপাতালে পাঠায়।

চিকিৎসাধীন হারুন হাওলাদার জানায়, সন্ত্রাসী শাহজালাল ও আলমগীর কিছুদিন আগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি সম্পর্কে অশালীন উক্তি করলে তিনি ও বাবুলগাজী প্রতিবাদ করলে ওই সময়ে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দসহ ডালবুগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এর নিকট ক্ষমা চায়। একটি জমাজমি নিয়ে ইদ্রিস হাং বনাম ফরিদ হাং একটি সালিশ মীমাংসা করলে সকলে মেনে নিলেও ফরিদ হাং: মেনে নিতে পারেনি। তাই এসব ঘটনার জের ধরে ফরিদ হাং: ছেলে-মেয়ে আত্মীয় স্বজন নিয়ে ইদ্রিস হাং এর বাড়ির সামনে পেয়ে মো.বাবুলগাজী ও মো: হারুন হাওলাদারের ওপর হামলা চালায় বলে জান গেছে।

এদিকে বাবুলগাজী ও মো. হারুন হাওলাদারের ওপর হামলা চালানোর প্রতিবাদে ডালবুগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ কার্যালয় ও পরিষদ সংলগ্ন বাজারে বৃহস্পতি বার বেলা ১১ টায় মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেন। সভাপতিত্ব করেন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হায়দার ফকির ও ডালবুগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ ও ইউপি সদস্য মো: শাহাবুদ্দিন মুন্সীর সভাপতিত্বে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উভয় সভায় বক্তারা ফরিদ হাং:সহ হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতারসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন। এখন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে চিকিৎসাধিন হারুন হাওলাদার।

মহিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা( ওসি) খোন্দকার মো: আবুল খায়ের বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে মামলা হয়েছে এখন তদন্ত চলছে।

Previous articleবোরহানউদ্দিনে প্রতিবন্ধী নারীকে নির্যাতনের অভিযোগ
Next articleটিকে থাকার ম্যাচে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে পাকিস্তান
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।