আবুল কালাম আজাদ: কুড়িগ্রামের উলিপুরে তিস্তা নদী বেষ্টিত বজরা ইউনিয়নের তিস্তার গর্ভে বিলীন হওয়া পরিবার গুলোর প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলো বিভাগীয় কমিশনার সাবিরুল ইসলাম। এসময় তিস্তার তীব্র স্রোতে ভেঙ্গে যাওয়া এলাকা গুলো পরিদর্শন করেন। আকর্ষিক ভাবে ভেঙ্গে যাওয়া তিস্তার পাড় পরিদর্শন শেষে অসহায় ১’শ ২৫ পরিবারের মাঝে ঢেউটিন, নগদ অর্থ ও শুকনা খাবার বিতরণ করেন।

গত সোমবার (২৯ আগষ্ট) রাত ১২ টার পর থেকে উপজেলার বজরা ইউনিয়নের বজরা পশ্চিম পাড়ায় তিস্তার তান্ডবে কমিউনিটি ক্লিনিক, ঈদগাহ মাঠ, মসজিদ ও মন্দির সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা সহ বসত ভিটা তিস্তার গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। ভাঙন চলছিল আরও বেশ কয়েকটি গ্রামে। প্রায় পাঁচ শতাধিকের ও বেশি বসতভিটা এরই মধ্যে চলে যায় নদীগর্ভে।

এমনকি বজরা পশ্চিম পাড়া বেসরকারি মাদ্রাসা সরিয়ে নেয়া হয়েছে অন্যত্রে। ভাঙ্গন কবলিত এলাকার জনগণ তাদের বাড়ি ঘর অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে গেছেন। বজরা সাদুয়া দামার হাট, সাতালস্কর ও প‌শ্চিম বজরা গ্রা‌মে চার কিঃ মিটার এলাকা জু‌ড়ে ‌তিস্তার ভয়াবহ ভাঙ্গ‌নে দি‌শেহারা ওই এলাকার মানুষ। বসতভিটা হারিয়ে তাদের আহাজারিতে আকাশ বাতাস ভারি হয়ে উঠেছে। কোথায় যাবেন কি খাবেন সে চিন্তায় তাদের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। তারা বর্তমান কোন উপায় না পেয়ে খোলা আকাশের নিচে জীবন যাপন করছেন। এ সংক্রান্ত রিপোর্ট বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক পত্রিকা এবং বিভিন্ন চ্যানেলে প্রকাশিত হলে নদী ভাঙ্গনের বিষয়টি রংপুর বিভাগীয় কমিশনার সাবিরুল ইসলাম এর নজরে আসে।

শুক্রবার (০২ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় পশ্চিম বজরা ভাঙন কবলিত এলাকায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সহায়তায় এসব ত্রাণ বিতরণ করা হয়। নদী ভাঙনে ভিটেমাটি হারা ২৫ পরিবারকে ১ বান্ডিল ঢেউটিন ও নগদ ৩ হাজার করে টাকা এবং ১’শ পরিবারকে শুকনা খাবার হিসেবে ১০ কেজি চাল, ১ লিটার সয়াবিন তেল, ১কেজি মশুর ডাল, ১কেজি লবণ, ১কেজি চিনি, ধনিয়া মরিচ ও হলুদের গুড়া বিতরণ করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম, পুলিশ সুপার আল আসাদ মো. মাহফুজুল ইসলাম, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম হোসেন মন্টু, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উলিপুর সার্কেল) মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা আব্দুল হাই সরকার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) কাজী মাহমুদুর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবু সাঈদ সরকার, বজরা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ুম সরদার, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সিরাজুদ্দৌলা ও স্থানীয় ইউপি সদস্য এনামুল হক প্রমুখ।”

Previous articleভোলার তজুমদ্দিনে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষনে সিসি ক্যামেরার উদ্বোধন
Next articleকিংবদন্তি গীতিকার, চলচ্চিত্র পরিচালক ও প্রযোজক গাজী মাজহারুল আনোয়ার আর নেই
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।