জয়নাল আবেদীন: সাফের শিরোপা জিতে বাড়ি ফেরা সিরাত জাহান স্বপ্নাকে ফুলে ফুলে বরণ করে নিয়েছে রংপুরবাসী। এ সময় সকলের ভালোবাসায় সিক্ত স্বপ্না আরেকটি সুখবর দিয়েছেন। জানিয়েছেন যে, সব ঠিক থাকলে বিদেশি লিগে তিনিও খেলতে যাবেন ।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১ টায় ঢাকা থেকে বিমানযোগে সৈয়দপুরে আসেন রংপুরের স্বপ্না,সঙ্গে আসেন আরো দুজন ঠাকুরগাঁওয়ের স্বপ্না রানী ও সোহাগী কিসকু। তাদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন ক্রীড়া সংস্থার কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি ও জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা।সৈয়দপুর বিমানবন্দরে সিরাত জাহান বলেন, রংপুরবাসী আমাদের জন্য অপেক্ষা করছে দেখে খুব খুশি। এই ভালোবাসা সামনে আমাদের অনুপ্রাণিত করবে। আগে এলাকার অনেকে খেলতে বাধা দিয়েছে। এখন তারাও আনন্দ করছে। তিনি বলেন, বিদেশি লিগে খেলার জন্য মৌখিকভাবে সাত ফুটবলারকে নির্বাচনের কথা বলা হয়েছে। এর মধ্যে আমার নাম রয়েছে। আশা করছি বিদেশি লিগে খেলতে পারবো।

ঠাকুরগাঁওয়ের স্বপ্না রানী বলেন, শিরোপা ঘরে আনতে পেরে গর্বিত। দেশের সকলে আমাদের দিকে তাকিয়ে আছে, সামনেও সমর্থন চাই। সোহাগী কিসকু বলেন, গ্রামের মেয়েরা ফুটবল খেলতে চাইলে তাদের যেন সুযোগ দেওয়া হয়।মেয়েদের বরণের সময় উপস্থিত ছিলেন বিভাগীয় ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আনোয়ারুল ইসলাম, ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মঞ্জুর আহম্মেদ আজাদ, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নাছিমা জামান ববি, স্বপ্নার ফুটবল প্রশিক্ষক হারুন অর রশিদসহ রংপুর ও ঠাকুরগাঁও জেলা ক্রীড়া সংস্থার কর্মকর্তাগণ। বরণের পর তাদের ছাদখোলা জিপে নিয়ে নগরীতে বিজয় উদযাপন হয়। এদিকে বিমানবন্দরে বরণের পর ছাদখোলা জিপ গাড়িতে সিরাত জাহান স্বপ্নাসহ তিন সাফজয়ী নারী ফুটবলারকে রংপুর নগরী প্রদক্ষিণ করানো হয়। এরপর পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে তাদের সংবধর্না প্রদান করে জেলা প্রশাসন, জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থা। রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাফা স্বপ্নাকে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা দিয়ে এক লাখ টাকা অনুদান দেয়ার ঘোষনা দিয়ে স্বপ্নার সাফল্য কামনা করে বলেন সদ্যপুস্করিনীর অনেক মেয়ে জাতীয় টিমে রয়েছে, তারা ধারাবাহিকভাবে এগিয়ে যাবে।

স্বপ্নার এই অগ্রযাত্রাকে দেখে আমি এই পালিচড়াবাসিসহ সকলকে বিশেষ করেন উযীয়মান খেলোয়াড় তাদেরকে মাঠে ফিরিয়ে এসে তাদের প্রতিভার স্বাক্ষর রাখার জন্য অনুরোধ রাখছি। তিনি বলেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে তাদেরকে পৃষ্ঠপোষকতা ও সার্বিক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। এর আগে শুরুতে জেলার সেবক জেলা প্রশাসক আসিব আহসান ফুলের মালা পরিয়ে সম্বর্ধনার উদ্ধোধন করেন । এর পর পুলিশ সুপার প্রকৌশলী ফেরদৌস আলী চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগ, মহানগর আওয়ামীলীগ,রংপুর প্রেসক্লাব, রিপোর্টাস ক্লাব, সিটি প্রেসক্লাব, জেলা ও বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা , রংপুর জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন, সোনালী অতীত ক্লাব, রংপুর রেফারী এসোসিয়েশন। এরপর স্বপ্না সবার উদ্দ্যেশে তার অনুভুতি ব্যাক্ত করেন । এ সময় সিরাত জাহান স্বপ্না বলেন, যখন আমি প্রথম ফুটবল খেলা শুরু করেছিলাম, তখন এলাকার অনেকে বাধা সৃষ্টি করেছিল। আমাদের সমাজের পরুষেরা চায় মেয়েরা একটু পিছিয়ে থাক। এখন আমার সাফল্যে তারাও আনন্দ প্রকাশ করছে।

পরিবর্তন শুরু হয়েছে। সামনে আমাদের আরও ভালো করতে হবে। অপর সাফজয়ী খেলোয়াড় স্বপ্না রানী রায় বলেন, শিরোপা ঘরে আনতে পেরে আমরা গর্ববোধ করছি। দেশের সবাই আমাদের দিকে তাকিয়ে আছে। আরও ভালো কিছু করতে সবার সাপোর্ট চাই।ঠাকুরগাঁওয়ের এই ফুটবলকন্যা আরও বলেন, ফুটবল খেলার শুরুতে অনেক বাধা এসেছে। হাফ প্যান্ট পরে মেয়েরা ফুটবল খেলছে বলে গ্রামের মানুষেরা কটূক্তি করেছে। এতেও আমরা থেমে থাকিনি। স্কুল পর্যায়ে খেলার সময় স্যারেরা অনেক সাপোর্ট করেছে। এখন সবাই উৎসাহ দিচ্ছে। বিকেলে সদর উপজেলার সদ্য পুস্করনী নয়াপুকুর স্টেডিয়ামে স্বপ্নাকে সংবর্ধনা প্রদানসহ প্রীতি ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে রংপুর জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন সভাপতি বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠন নিজস্ব তহবিল থেকে স্বপ্নাকে ১লাখ টাকা প্রদান করেন ।

Previous articleশাহজাদপুরে সাফ জয়ী ফুটবলার আঁখি খাতুনকে সংবর্ধনা প্রদান
Next articleসুন্দরগঞ্জে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।