বাংলাদেশ প্রতিবেদক: জয়পুরহাটে রহস্যজনক সাজেদা ইসলাম (৩৭) হত্যা মামলার দুই আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা আদালতে এ হত্যাকান্ডের স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দিয়েছেন। পরকীয়া জেরে হত্যাকারীরা তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে বলে সোমবার দুপুরে জয়পুরহাট অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পুলিশ সুপার পদোন্নতি প্রাপ্ত) তরিকুল ইসলাম এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, জয়পুরহাট সদর উপজেলার খনজনপুর এলাকার আনিছুর রহমানের ছেলে আবু সাঈদ ও একই মহল্লার জহুরুল ইসলামের ছেলে রাব্বী হোসেন। সংবাদ সম্মেলন সুত্রে জানা যায়, জয়পুরহাট শহরের জানিয়ার বাগান এলাকায় ডাঃ পারভীনের ফ্লাট বাড়ীর ৫ তলার বাসায় ছোট মেয়ে আরিফাকে নিয়ে ভাড়া থাকতেন সাজেদা ইসলাম সাজু। তার স্বামী হাফিজুল ইসলাম জেলার বাহিরে চাকরি করতেন। শহরের যে স্কুলে তার মেয়ে পড়াশোনা করতো সেই স্কুলের কম্পিউটার অপারেটর আবু সাঈরেদ সাথে মেয়ের স্কুলে যাওয়া আসার সুবাদেই পরকীয়া সম্পর্ক হয় সাজেদার। গত ২৭ সেপ্টেম্বর সকালে মেয়ে আরিফা এসএসসি পরীক্ষা দিতে যায়। সেইদিন আবু সাঈদের সাথে সাজেদার মোবাইলে কথা হয়। এরপর বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে সাঈদ তার বন্ধু রাব্বীকে নিয়ে ওই গৃহবধুর বাড়িতে আসেন। এসময় সাজেদাকে একা পেয়ে তারা তার সাথে শারীরিক সম্পর্ক করতে চাইলে সে বাধা দেয়। তখন আসামীরা সাজেদার হাত পা চেপে ধরে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে হাত পা বেঁধে ও মুখ স্কচটিপ দিয়ে মুখ বন্ধ করে রেখে পালিয়ে যায়।

পরে তার মেয়ে পরীক্ষা দিয়ে বাড়িতে এসে মায়ের লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ বিকেলে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। এ ঘটনায় ২৯ সেপ্টেম্বর গৃহবধুর স্বামী বাদী হয়ে জয়পুরহাট সদর থানায় একটি হত্যা মামলার দায়ের করেন।এদিকে ঘটনার পর থেকেই হত্যার রহস্য উদঘাটনে মাঠে নামে পুলিশ, ডিবি পুলিশ ও গোয়েন্দা বিভাগ। এরই ধারাবাহিকতায় ঘটনার সাথে জড়িত রাব্বীকে ফুলবাড়ী থানা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তার দেওয়া জবানবন্দিতে আবু সাঈদকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়।

Previous articleসুন্দরগঞ্জে পানিতে ডুবে ভাই-বোনের মৃত্যু
Next articleটাঙ্গুয়ার হাওরে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে আয়বর্ধমূলক উপকরণ বিতরণ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।