বাংলাদেশ প্রতিবেদক: নোয়াখালী সদর উপজেলার নেওয়াজপুর ইউনিয়নের ১নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য (মেম্বার) মজিব উল্যার ১৫ বছর বয়সী কন্যর বাল্যবিবাহ পন্ড করে দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিজাম উদ্দিন আহমেদ।

শনিবার (১৫ অক্টোবর) দুপুরে উপজেলার দেবীপুর গ্রামে ওই ইউপি সদস্যের বাড়িতে ভ্রাম্যমাণ আদালত উপস্থিত হয়ে এই বাল্যবিবাহ বন্ধ করে। কনের বাবা একজন জনপ্রতিনিধি হয়েও নিজ কন্যার বাল্যাবিবাহের আয়োজন করায় তীব্র সমালোচনা করেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

বাল্যবিবাহের শিকার হতে যাওয়া ওই স্কুলছাত্রী ফিরোজ শাহা মাইজভান্ডারী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে সদ্য এসএসসি পরীক্ষা সমাপ্ত করেছেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিজাম উদ্দিন আহমেদ জানান, শনিবার দেবীপুরের স্থানীয় ইউপি সদস্য মজিব উল্যাহর স্কুল পড়ুয়া কন্যার বাল্যবিবাহ হচ্ছে স্থানীয়দের মাধ্যমে এমন সংবাদ পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতসহ সরেজমিনে উপস্থিত হয়ে বিয়ের কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হয়।

পরবর্তীতে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আমির হোসেন বাহাদুর, উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান নাছের, জেলা পরিষদ নির্বাচনে সদস্য পদপ্রার্থী কামাল উদ্দিন ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের উপস্থতিতে বর-কনে দুই পক্ষের অভিভাবকগণ ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ার আগে বিয়ের কাজ সম্পন্ন করবেন না মর্মে আদালতের নিকট মুচলেকা প্রদান করেন।

এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় সহযোগিতা করেন সুধারাম থানা পুলিশ।

Previous articleখাদ্য নিরাপত্তা ঝুঁকি মোকাবিলায় কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধির বিকল্প নেই: রাষ্ট্রপতি
Next articleবিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন, পলাতক প্রেমিক
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।