সোমবার, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২৪
Homeসারাবাংলাপ্রতারণা মামলায় স্ত্রীসহ গ্রেফতার ভাতিজার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে চান এমপি ফারুক

প্রতারণা মামলায় স্ত্রীসহ গ্রেফতার ভাতিজার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে চান এমপি ফারুক

মাসুদ রানা রাব্বানী: নিজের মার্কেটের কর্মকর্তা ও ভাতিজা নাহিদুজ্জামান পাপ্পুর ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিবেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) আসনের সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরী।

ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, প্রতারণার ঘটনায় গ্রেফতারের পর পরিকল্পিতভাবে তাকে জড়িয়ে মিথ্যা বক্তব্য দিয়েছেন পাপ্পুর স্ত্রী বাঁধন জামান। এদিকে, সরকারি চাকরি নিয়ে দেয়ার কথা বলে রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) আসনের সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরীর একটি মার্কেটের কর্মকর্তা ও তার ভাতিজা নাহিদুজ্জামান পাপ্পুর বিরুদ্ধে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে মামলা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাতে রাজশাহী নগরের বোয়ালিয়া থানায় প্রতারণার মামলা করেছেন ভূক্তভোগী যুবক জনি আহম্মেদ। মামলায় নাহিদুজ্জামানের স্ত্রীকেও আসামি করা হয়েছে। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মার্কেটটির কর্মকর্তা ও সংসদ সদস্যের ভাতিজা নাহিদুজ্জামান ওরফে পাপ্পু (৩০) ও তাঁর স্ত্রী বাঁধন জামানকে (২৮) আটক করে পুলিশ। পরে ওই মামলায় স্বামী- স্ত্রীকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। পুলিশের হাতে আটকের সময় বাঁধন জামান সাংবাদিকদের বলেন, সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরীর নির্দেশেই তাঁর স্বামী এই লেনদেন করেছেন। বর্তমানে তার স্বামীর কাছে কোনো টাকা নেই।

সংসদ সদস্য আরও বলেন, ‘‘নাহিদুজ্জামানের বাবা তার আপন মামাতো ভাই। তার মা ও বাবার অনুরোধে নাহিদুজ্জামানকে তিনি মার্কেটের অ্যাডমিন অফিসার পদে চাকরি দিয়েছিলাম। তিনি তার (নাহিদুজ্জামানের) অপকর্মের বিষয় আন্দাজ করতে পেরে ২০ দিন আগে তাকে চাকরি থেকে ছাঁটাই করা হয়েছে। তার স্ত্রীর বক্তব্যের একটি ভিডিও তিনি হাতে পেয়েছেন। যখন বুঝতে পেরেছেন যে তাদের পায়ের তলায় আর মাটি নেই। তখন পরিকল্পিতভাবে আমাকে জড়িয়ে মিথ্যা বক্তব্য দিয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে তিনি আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।’’ পুলিশ জানিয়েছে, আসামি নাহিদুজ্জামান ও তার স্ত্রী বিভিন্নজনকে চাকরি দেওয়া, মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ করে দেওয়ার কথা বলে প্রায় ৮৫ লাখ টাকা প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নিয়েছেন। আসামিরা একটি সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের সদস্য। তারা দীর্ঘদিন ধরে সহজ-সরল ব্যক্তিদের চাকরির প্রলোভন দিয়ে প্রতারণা করে আসছেন।

আটকের সময় নাহিদুজ্জামানের স্ত্রী বাঁধন জামান বলেছিলেন, চাকরি দেওয়ার নামে সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরী তার স্বামীর মাধ্যমে টাকা নিয়েছেন। এ জন্য তার স্বামীকে ওই টাকার ৩০ শতাংশ দেওয়ার কথা ছিল। বাকি ৭০ শতাংশ ওমর ফারুক চৌধুরীর নেওয়ার কথা। কিন্তু তার স্বামীর হাতে কোনো টাকা নেই। সব নিয়েছেন সংসদ সদস্য। এ কথা ফাঁস করলে তার স্বামীকে বাসায় গিয়ে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়।

সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরীকে ‘রাঘববোয়াল’ বলে সম্বোধন করে সাংবাদিকদের তার কাছে যেতে বলেন বাঁধন। তিনি আরও বলেন, তার স্বামীকে ধরে কোনো লাভ নেই। তার স্বামীর হাতে কোনো টাকা নেই।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments