মঙ্গলবার, জুলাই ২৩, ২০২৪
Homeঅপরাধ২০ বছর পালিয়ে থেকেও শেষ রক্ষা হলোনা

২০ বছর পালিয়ে থেকেও শেষ রক্ষা হলোনা

মুহ.মিজানুর রহমান বাদল,মানিকগঞ্জ :
মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার চাঞ্চল্যকর ও আলোচিত রুবেল হত্যা মামলার দীর্ঘ ২০ বছর বিভিন্ন ছদ্মবেশে পলাতক যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী ওমর আলীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৪। আসামী ওমরকে সিংগাইর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।
রবিবার (২৭ আগস্ট) সকাল ১০ টার দিকে প্রেস ব্রিফিংয়ে নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-৪ কমান্ডার লে. কমান্ডার এম আরিফ হোসেন। এর আগে গতকাল রাতে তাকে ঢাকার সাভার উপজেলা থেকে গ্রেফতার করা হয়।
র‌্যাব জানায়, ওমর আলী ও ভিকটিম রুবেল একই এলাকায় বসবাস করতেন। ভিকটিম রুবেলের বাবা সামছুল হকের সাথে আগে থেকেই জমি-জমা নিয়ে ওমর আলীর বিরোধ ছিল। ২০০১ সালের ২৪ এপ্রিল সকাল ১০ টার দিকে জমির চাষাবাদকে কেন্দ্র করে ভিকটিম রুবেল ও ভিকটিমের বাবা সামছুল হকের সাথে ওমর আলীর কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। বিরোধের জের ধরে ২০০১ সালের ২৬ এপ্রিল রুবেলকে রওশন আলীর মাঠে একা পেয়ে পূর্ব থেকে ওৎপেতে থাকা ওমর আলীসহ তার অন্যসহযোগীরা মিলে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে ভিকটিম রুবেলকে কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে ওই মাঠের দক্ষিণ পাশের নালায় বস্তায় বেধে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যায়।
ভিকটিমের বাবা সামছুল হক তার ছেলেকে কোথায় খুঁজে না পেয়ে সিংগাইর থানায় একটি নিখোঁজ ডায়রী করেন। ভিকটিমের বাবা জানতে পারে যে, সিংগাইরের ধল্যা ইউনিয়নের গাজিন্দা গ্রামে রওশন আলীর মাঠের দক্ষিণ পাশের নালার মধ্যে বস্তা ভর্তি একটি লাশ পাওয়া গেছে। খবর পেয়ে সামছুল হক ঘটনাস্থলে গিয়ে উক্ত লাশটি তার ছেলে রুবেলের বলে সনাক্ত করে। স্থানীয়রা সিংগাইর থানা পুলিশকে খবর দিলে লাশটি নালা থেকে উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মানিকগঞ্জ সদর মর্গে পাঠায়।
ভিকটিমের বাবা সামছুল হক বাদী হয়ে সিংগাইর থানায় ওমর আলী ও তার সহযোগী ইব্রাহিম, রাজ্জাক, হানিফসহ অজ্ঞাতনামা তিন থেকে চারজনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা করেন। মামলা হওয়ার পর আসামী ওমর আলী ও তার সহযোগী হত্যাকারী ইব্রাহিম, রাজ্জাক এবং হানিফকে সিংগাইর থানা পুলিশ গ্রেফতার করে।
গ্রেফতারকৃত আসামীরা ১৭ মাস কারাবাস শেষে জামিনে মুক্তি পায়। আসামী ওমর আলী জামিনে মুক্তি পেয়ে আত্মগোপনে চলে যায়। মামলার তদন্ত শেষে তদন্তকারী কর্মকর্তা ওমর আলী, ইব্রাহিম, রাজ্জাক এবং হানিফদেরকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। পরবর্তীতে চার্জশীটের ভিত্তিতে আদালত মামলার বিচারকার্য পরিচালনা করেন এবং পর্যাপ্ত স্বাক্ষ্য প্রমাণ ও উভয় পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে ভিকটিম রুবেল হত্যাকান্ডে সরাসরি সম্পৃক্ত থাকার অপরাধে মানিকগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ চার্জশীটে অভিযুক্ত আসামী ওমর আলীকে যাবজ্জীবন সাজা প্রদান করেন এবং অপর আসামী ইব্রাহিম, রাজ্জাক এবং হানিফকে মামলা থেকে খালাশ প্রদান করেন।
লে. কমান্ডার এম আরিফ হোসেন জানান, পলাতক আসামী ওমর আলী মামলা বিচারাধীন থাকা অবস্থায় জামিনে মুক্তি পাওয়ার পর থেকে গত ২০ বছর যাবৎ পলাতক ছিলেন। যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত হওয়ায় গ্রেপ্তার এড়ানোর লক্ষ্যে ওমর আলী এলাকা থেকে পালিয়ে ঢাকার সাভার এলাকায় চলে আসে। গত ২০ বছর ধরে আসামী ওমর আলী ঢাকা জেলার আশুলিয়া ও সাভার এলাকায় স্ত্রীকে নিয়ে আত্মগোপনে থেকে রিক্সা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে আসছিল। গতকাল রাত পৌনে ১১ টার দিকে অভিযান চালিয়ে সাভার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাকে সিংগাইর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerkagoj.com.bd/
Ajker Bangladesh Online Newspaper, We serve complete truth to our readers, Our hands are not obstructed, we can say & open our eyes. County news, Breaking news, National news, bangladeshi news, International news & reporting. 24 hours update.
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments