করোনাকালে বিদেশি ঋণের রেকর্ড

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে গত জুন মাসে বিভিন্ন দাতা দেশ ও সংস্থার কাছ থেকে ঋণ-সহায়তা হিসেবে রেকর্ড ১৯৮ কোটি ৩০ লাখ ডলার পেয়েছে বাংলাদেশ। এর আগে কখনোই এক মাসে এত বেশি বিদেশি ঋণ দেশে আসেনি। সর্বশেষ ২০১৮ সালের জুন মাসে ১৪৩ কোটি ৪৩ লাখ ডলারের ঋণ এসেছিল; যেটা ছিল এতোদিন সর্বোচ্চ।

অর্থবছরের হিসেবেও বিদেশি ঋণে রেকর্ড হয়েছে এবার। গত ২০১৯-২০ অর্থবছরে সব মিলিয়ে দাতাদের কাছ থেকে ৭২৭ কোটি ২০ লাখ ডলার ঋণ পেয়েছে বাংলাদেশ। এই অংক আগের বছরের চেয়ে ১৭ দশমিক ২ শতাংশ বেশি।

এই ঋণের অর্ধেকেরও বেশি, ৩৭৬ কোটি ৮৮ লাখ ডলার এসেছে, মহামারীকালের চার মাস- মার্চ থেকে জুনের মধ্যে। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে পাওয়া ৬২১ কোটি ডলার ছিল এতদিন এক অর্থবছরে পাওয়া বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ঋণ-সহায়তা।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল গণমাধ্যমকে বলেন, “কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবেলার জন্য সরকার অভ্যন্তরীণভাবে প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়নের পাশাপাশি অর্থনীতির ক্ষতির বাস্তব চিত্র তুলে ধরে দাতাদের কাছে ঋণ-সহায়তার আবেদন করেছিল। তারাও বেশ ভালো সাড়া দিয়েছে।”