অর্থ সংকটে সরকার: দুই মাসে রাজস্ব ঘাটতি ১২ হাজার কোটি টাকা

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: মহামারী রূপ নেওয়া কোভিড-১৯ এর প্রভাবে ধীরগতিতে চলছে সরকারের রাজস্ব আদায়, চলতি অর্থবছরের প্রথম দুই মাসেই ঘাটতি ১২ হাজার কোটি টাকা। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, অর্থবছর শেষেও রাজস্ব আদায়ে বড় ধরনের ঘাটতি থাকবে। কেননা দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য স্থবির হয়ে রয়েছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে সরকারি দপ্তরগুলোর সব ধরনের গাড়ি কেনা বন্ধ, বিলাসী ব্যয় কর্তন, কম গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পের অর্থায়ন বন্ধ ও ভ্রমণ স্থগিত করা হয়েছে। সর্বশেষ গত ৮ সেপ্টেম্বর খরচ কমানোর এক নতুন নির্দেশনা জারি করে সরকার। সেখানে উন্নয়ন প্রকল্পে নিয়োজিত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা চলতি অর্থবছরের বাজেটের থোক বরাদ্দের অর্থ দিয়ে পরিশোধের কথা বলা হয়েছে।

করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সরকার ১ লাখ ৩ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা ঘোষণা করে। ইতিমধ্যে তা বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে। অথচ রাজস্ব আহরণে বড় ধরনের ঘাটতি। এর কারণেই ব্যয় সংকোচনের পথে হাঁটছে সরকার। অতিগুরুত্বপূর্ণের বাইরে খরচ করতে চাচ্ছে না। এ জন্য উন্নয়ন ও পরিচালন- উভয় ধরনের ব্যয় সংকোচন নীতি বেছে নেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, বিলাসী ব্যয় ও বিদেশ ভ্রমণ এমনকি দেশের অভ্যন্তরেও যাতায়াত খরচ কমানোর কৌশল নিয়েছে সরকার। এ জন্য বেশিরভাগ সভা করা হচ্ছে অনলাইনে। এতে করোনার সংক্রমণ ঝুঁকিও কমানো সম্ভব বলে মনে করা হচ্ছে। এ বিষয়ে এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান ড. আবদুল মজিদ বলেন, ‘স্পষ্টই বোঝা যাচ্ছে রাজস্ব ঘাটতি থাকবে। এ জন্য ব্যয়ের বাজেট হ্রাস করতেই হবে। কারণ ব্যয় সাশ্রয়ী না হলে বাজেট বাস্তবায়নও অসম্ভব হবে।’

Previous article‘ছেলেকে আমি ক্রিকেটারের সাথে কোরআনের হাফেজ বানাবো’
Next articleবুয়েট ছাত্র আবরার হত্যা মামলার বিচার শুরু
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।