সংগৃহীত ও অনুলিখন : আশরাফুল আলম খোকন

এই দেশটা আর ভালো লাগছে না। সবকিছু কেমন যেন উলটপালট। সব বদলে গেছে। সবাই শুধু উন্নয়নের দালালি করে। সমৃদ্ধির গুনগান গায়।

ক্রিকেট খেলা দেখেও শান্তি নাই। চারদিকে আওয়ামী লীগের মৌ মৌ গন্ধ। মাশরাফি নৌকা মার্কা নিয়ে ভোট করে। সাকিব নৌকার জন্য তরুণদের কাছে ভোট চায়। ক্রিকেটের বিস্ময় বালক মেহেদী মিরাজকে শেখ হাসিনা ঘর বানিয়ে দেয়। মুশফিক, সৌম্য, লিটন এদের গায়েও কেমন যেন আওয়ামী গন্ধ।

নাটক সিনেমা দেখেও শান্তি পাচ্ছি না। আলমগীর ফারুক’রা না হয় পুরোনো দিনের বাকশালি। হালের নাম্বার ওয়ান শাকিব খান, রিয়াজ, ফেরদৌস, ইমন,সায়মন, জায়েদ খান’রাও যে শেখ হাসিনার আস্থা রেখেছে। কেন রে, দেশে কি আর কেউ ছিলোনা?
নায়করা গেছে মানলাম ঠিক আছে, নায়িকা গুলো কেন হুমড়ি খেয়ে পড়লো ? পূর্ণিমা, অপু বিশ্বাস, মাহিয়া মাহি, নিপুনরা রীতিমতো পাল্লা দিয়ে ক্যাম্পেইন করে বেড়াচ্ছে।
টিভি নাটকতো আগেই গেছে। ফেরদৌসী মজুমদার, সুবর্ণা থেকে শুরু করে নিকট অতীতের শমী, হালের তারিন, বাঁধনরাও দেখি নৌকা নৌকা করে। কি মজা যে ওরা পাইছে।

আওয়ামী গন্ধে ভরপুর বলে দেশি গান শোনা ছেড়েই দিয়েছিলাম। হালের তাপস, তাহসানদের গানের ভক্ত হয়ে গিয়েছিলাম। ওমা এখন দেখি এরাও বাকশালী…

প্রশাসন, আর্মি, পুলিশ জানি এখন কেমন কেমন হয়ে গেছে। অবসর নিলেই এসে মুক্তি যুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তির সঙ্গে হাত মিলিয়ে যায়। শেখ হাসিনার উন্নয়নের রাজনীতির প্রতি আস্থা রেখে যায়।

সারাজীবন জানতাম ব্যবসায়ীরা খুব হিসাবি, সব দিকে ব্যালেন্স করে চলে। এখন দেখি ব্যবসায়ীরাও সদলবলে গিয়ে শেখ হাসিনাকে সমর্থন দিয়ে আসে।

এই দেশের আলেম সমাজকে আগের মত আর ভালো লাগেনা! সুন্নি, ওহাবি, হেফাজত, কওমী সবাই সরকারের কাছ থেকে টাকা খেয়ে, সরকারকে ইসলাম বান্ধব সরকার বলে, সরকারের গুণগান গায়, সরকারের সুনাম করে, এরাও সবাই আওয়ামীলীগের দালাল।

হিন্দু, বৌদ্ধ, খৃস্টানদের আগের মত আর ভালো লাগেনা! ওনারাও সবাই গত দশ বছরে তাদের জানমালের নিরাপত্তা নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে, এরাতো অবশ্য আগে থেকেই সবাই আওয়ামীলীগের দালাল।

বিশ্ব পরাশক্তির রাষ্টগুলাকে আগের মত আর ক্যারিশমা দেখাইতে পারেনা। শেখ হাসিনার কাছে সব ধরা।
সৌদি আরব, রাশিয়া, আমেরিকা, চীন, ভারত, কানাডা ইত্যাদি সকল দেশই বলে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল, শেখ হাসিনা উন্নয়নের রুপকার। এরা সবাই কেমন জানি আওয়ামীলীগের দালালি শুরু করেছে।

এদেশের জনগণকেও আগের মত আর ভালো লাগেনা!
আজ কতটা মাস হয়ে গেল বেগম জিয়া জেলে, অথচ কেউ আন্দোলন করেনা, রাস্তায় নামেনা, মিছিল মিটিং হরতাল করেনা। জনগণও উন্নয়ন খেয়ে বসে আছে।

এই বাংলাদেশটাই আর ভালো লাগেনা!

এখানে দেশবিরোধী কোন কথা বলা যায় না, কোন কাজ করা যায় না, কোন চক্রান্ত করা যায় না, সব কিছু সরকার রেকর্ড করে ফাঁস করে দেয়। বোমা ফোটানো যায়না, ভাঙ্গচুর করা যায় না, গাড়িতে আগুন দেয়া যায় না, কিছু করলেই পুলিশ এরেস্ট করে নিয়ে যায়। এই দেশে স্বাধীনতা নেই, গণতন্ত্র নেই, এই বাংলাদেশটাই আওয়ামী লীগের দালাল।

আমরাই শুধু ভালো। কারণ আমরা এক একজন জাতীয়তাবাদী, মার্ক্সবাদী, জামাতি। ইনিয়ে বিনিয়ে কথা বলি। আমরা এক একজন পূতঃপবিত্র, নিষ্কলুষ। আমরা গভীরতম জ্ঞানী এবং বিস্ময়কর চিন্তাশীল। আর বাকি যা আছে সব বোকা, মূর্খ। তাই ভেবেছি দেশটাই ছেড়ে দিবো।