বাংলাদেশ ডেস্ক: অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার উদ্ভাবিত করোনাভারাসের টিকার ভারতীয় সংস্করণ কোভিশিল্ডের নকল ডোজ উদ্ধারের ঘটনা ঘটেছে। এতে উদ্বেগ জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে বিবিসি।

বুধবার এ বিষয়ক এক বিবৃতিতে ডব্লিউএইচও’র পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘ভারত ও আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ থেকে কোভিশিল্ড টিকার উল্লেখযোগ্য পরিমাণ নকল ডোজ উদ্ধার হয়েছে। এই টিকার প্রস্তুতকারী কোম্পানি সেরাম ইনস্টিটিউট ইতিমধ্যে তা স্বীকার করেছে। উদ্ধারকৃত ডোজগুলো নকল বা ভুয়া।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘নকল ডোজ উদ্ধারের ঘটানায় উদ্বিগ্ন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। কারণ, এসব কর্মকাণ্ডের ফলে জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ঝুঁকি তৈরি এবং মহামারি দীর্ঘায়িত হচ্ছে।’

এদিকে, ভারত সরকার থেকে এখন পর্যন্ত এ সম্পর্কে কোনো আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দেওয়া হয়নি, তবে দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, এ বিষয়ে ইতিমধ্যে তদন্ত শুরু হয়েছে।

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ফর্মুলায় ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের পুনেতে বিশ্বের বৃহত্তম টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়ার (এসআইআই) প্রস্তুতকৃত টিকা ‘কোভিশিল্ড’ প্রাস্তুত করা হয়েছে। অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভারতীয় সংস্করণের নামই হলো কোভিশিল্ড।

মহামারি মোকাবিলায় চলতি বছর ১৬ জানুয়ারি থেকে গণটিকাদান কর্মসূচি শুরু করেছে ভারত সরকার। কর্মসূচিতে ব্যবহার হচ্ছে মূলত দু’টি করোনা টিকা – কোভিশিল্ড ও এখন পর্যন্ত ভারতের নিজস্ব প্রযুক্তিতে প্রস্তুতকৃত করোনা টিকা কোভ্যাক্সিন। তবে ভারতীয়দের মধ্যে কোভ্যাক্সিনের চেয়ে কোভিশিল্ডের চাহিদা বেশি

Previous article‘অন্তরালে অনৈতিক কাজে সম্পৃক্ত পরীমনি’ মিলেছে তথ্য-প্রমাণ
Next articleসেপ্টেম্বর থেকে সাত কলেজের পরীক্ষা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।