২০ জনের হত্যাকারী থাইল্যান্ডের সেই সেনাসদস্য গুলিতে নিহত

বাংলাদেশ ডেস্ক: থাইল্যান্ডে এলোপাতাড়ি গুলি চালিয়ে ২০ জনের হত্যাকারী সেই সেনাসদস্যকে গুলি করে হত্যা করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। ওই সেনাসদস্যের নাম জাক্রাফান্থ থোম্মা। থাই পুলিশ এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।
শনিবার দেশটির নাখন রাচসিমা শহরে এলোপাতাড়ি গুলি চালায় ওই সেনা সদস্য। এতে ২০ জন নিহত ও অনেকে আহত হয়েছেন।
আজ রোববার সকালে ওই বন্দুকধারী নিহত হয়েছেন বলে ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে জানিয়েছেন থাইল্যান্ডের গণস্বাস্থ্য মন্ত্রী আনুতিন ছার্নভিরাকুল।
তিনি বলেন, ‘সেনাবাহিনী ও পুলিশ বাহিনীকে ধন্যবাদ অবস্থার পরিসমাপ্তির জন্য। বন্দুকধারী গুলিতে নিহত হয়েছেন।’
দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র কংচিপ তন্ত্রাওয়ানিত বিবিসিকে জানায়, জাক্রাফান্থ থোম্মা নামে সামরিক বাহিনীর ওই জুনিয়র অফিসার তার কমান্ডিং অফিসারের ওপর হামলা চালিয়ে সামরিক ক্যাম্প থেকে বন্দুক ও বিস্ফোরক চুরি করে।
ব্যাংকক পোস্টের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, হামলাকারী ওই সেনাসদস্য সেনাবাহিনীর একটি শিবিরে প্রথমে তার কমান্ডিং অফিসারকে গুলি চালিয়ে হত্যা করেন। ওই সময় আরও দুই সেনাসদস্যকে গুলি করে স্বয়ংক্রিয় একটি রাইফেল নিয়ে পালিয়ে যান। পরে মং জেলার শপিং মলের ২১ নম্বর টার্মিনালের দিকে যেতে যেতে গুলি বর্ষণ করেন তিনি।
প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওই মুখপাত্র বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘তিনি কেন এমনটি করেছেন তা আমরা জানি না। সে উন্মাদ হয়ে গেছে বলে মনে হয়।’
এর আগে গতকাল স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টা ২০ মিনিটের দিকে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে এই হামলার দৃশ্য সরাসরি সম্প্রচার করেন ওই সেনাসদস্য। শপিংমল এলাকায় হামলা শুরুর দিকে রাইফেল হাতে নিয়ে একটি সেলফি তোলেন তিনি।
ফেসবুক লাইভের ক্যাপশনে লিখেন, অনেক বেশি ক্লান্ত। এই পোস্টের কিছুক্ষণ পরই ফেসবুক লাইভ বন্ধ হয়ে যায়। পরে তিনি শপিং মলে ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি চালিয়ে হত্যা করেন ২০ জনকে।