চিঠি : হাবিবা খান স্নেহা

চিঠি
হাবিবা খান স্নেহা…

ছোট একটা জাদুঘর বানাবো ভাবছি,
আচ্ছা! জাদুঘর বানাতে কি কি লাগে?
মানে কি কি আসবাব পত্র থাকলে
জাদুঘর বলবে?

আমি না-পাওয়া কিছু স্বপ্ন জমিয়েছি
অনেক কষ্টের আর্তনাদের ক’ফোঁটা
চোখের কান্নার নোনাজল জমিয়েছি,
বোধ হয় এ দিয়েই আমার একটা
জাদুঘর হয়ে যাবে।

জাদুঘরে তো অনেক পুরনো
আসবাব পত্র থাকে তাইনা?
আমার কাছে কিছু পুরনো ছেড়া,
পুরুনো বই,পাতা খুসেপড়া
অনেক গুলো ডাইরি আছে।

যেগুলো তো খুব যত্ন করে
সব স্বপ্নের কথা লিখা ছিল আমার।
যা বুকের ভিতর পুষে রাখা স্বপ্ন,
প্রায়ই খুব হা হা কার দিয়ে গর্জিয়ে ওঠে।
তাই ভাবছি এগুলো কাজে লাগাবো।

আমার সেই জাদুঘরেরর মাঝে
মায়াবিনী নামে একটা স্থান থাকবে,
যেখানে থাকবে পুরনো সেই বইটা,
যার বাজে রেখে দিয়েছি,
দুই তিনটা গোলাপের পাপরি।
বলতে না পাড়া কিছু স্বপ্নের কথা,
জানতে চাওয়া কিছু প্রশ্নের উওর।

আশা করি তুমিও আসবে দেখতে,
আর পড়বেও সেই বইটার বাজে রাখা
সেই চিঠিটা যা আমার কোমল হাতে লেখা।
আর সে দিন’ই সারা জীবনের
না-পাওয়া বাসনা আমাকে মুক্তি দিবে।