শনিবার, ডিসেম্বর ২, ২০২৩
Homeহৃদয়ে মাটি ও মানুষপীরগাছায় ধানের পোকামাকড় দমনে জনপ্রিয় হচ্ছে আলোক ফাঁদ

পীরগাছায় ধানের পোকামাকড় দমনে জনপ্রিয় হচ্ছে আলোক ফাঁদ

ফজলুর রহমান: আমন ক্ষেতের উঠতি ফসলকে পোকা-মাকড়ের আক্রমণ থেকে রক্ষা করতে কীটনাশক ব্যবহারের পরিবর্তে রংপুরের পীরগাছা উপজেলার কৃষকদের কাছে আলোক ফাঁদের ব্যবহার দিন দিন
জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। আর এতে কৃষকদের উৎসাহিত করছে উপজেলা কৃষি বিভাগ।

উপজেলা কৃষি অফিসের উদ্যোগে ও সার্বিক সহযোগিতায় প্রতিদিন সন্ধ্যায় আমন ফসলের ক্ষেতে পোকামাকড়ের উপস্থিতি যাচাইয়ের জন্য এই আলোক ফাঁদ স্থাপন করা হচ্ছে। এটি ব্যবহারে ক্ষতিকর পোকা ও উপকারী বন্ধু পোকাও নির্ণয় করা হচ্ছে। এই পদ্ধতিটি বর্তমানে কৃষকদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে বৃহস্পতিবার সন্ধায় উপজেলার কল্যাণী ইউনিয়নের নব্দীগঞ্জ ব্লকের বড়হাজরা গ্রামের কৃষক অন্তেষর চন্দ্র মোদক এর রোপা আমন ধান ক্ষেতে আলোক ফাঁদ স্থাপন করে কৃষি বিভাগ। আলোক ফাঁদ ধানের পোকা দমনে একটি পরিবেশবান্ধব পদ্ধতি। আলোক ফাঁদ তৈরিতে হারিকেন, বৈদ্যুতিক বাল্ব ও সৌরবিদ্যুতের সোলার প্যানেল ব্যবহার করা হয়ে থাকে। ধান খেত থেকে ৫০ থেকে ১০০ মিটার দূরে ফাঁকা জায়গায় বাঁশের খুঁটির
সাহায্যে মাটি থেকে ২-৩ ফুট উপরে একটি বৈদ্যুতিক বাল্ব জ্বালিয়ে এর নিচে একটি পাত্রে ডিটারজেন্ট পাউডার অথবা কেরোসিন মিশ্রিত পানি রাখা হয়। সন্ধ্যার পর এই আলোক ফাঁদের আলোয় আকৃষ্ট হয়ে ধান খেতের বিভিন্ন পোকামাকড় এসে পাত্রের পানিতে পড়ে। এভাবে আলোক ফাঁদ ব্যবহার করে ধানসহ ফসলের ক্ষতিকর ও উপকারী পোকার উপস্থিতি নির্ণয় ও নিয়ন্ত্রণ করা হয়। অতি অল্প খরচে তৈরি এ আলোক ফাঁদ
অন্ধকার রাতে দেখতেও বেশ দৃষ্টিনন্দন। আলোক ফাঁদ প্রদর্শনী দেখে উপস্থিত কৃষকরা জানান, আলোক ফাঁদের মাধ্যমে ক্ষতিকর পোকা নিধনে কোন খরচ নাই।

 

এই পদ্ধতিতে কীটনাশক ব্যবহার করতে হবে না বলে এতে পরিবেশেরও কোন ক্ষতি হবে না। এই আলোক ফাঁদ ব্যবহার করে এলাকার অনেক কৃষক বর্তমানে ক্ষেতে খুব কম ঔষধ ব্যবহার করছেন। এতে তাদের খরচ অনেকটাই কমে এসেছে এবং ধান উৎপাদনের পরিমাণও বৃদ্ধি পাচ্ছে। উপজেলার নব্দীগঞ্জ ব্লকের উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা ফারুক আযম জানান, রোপা আমন ক্ষেতের ফসল পোকার আক্রমণ থেকে রক্ষা করার জন্য আমরা পরিবেশ বান্ধব আলোক ফাঁদ তৈরী করণসহ কৃষকদের বিভিন্ন ধরনের কারীগরি সহায়তা করছি।
উপ-সহকারি উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা আব্দুল লতিফ এর সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমন ক্ষেতে কীটনাশকের ব্যবহার কমাতে উপজেলার ২৭টি ব্লকের প্রতিটিতে ১টি করে আলোক ফাঁদ প্রদর্শনী স্থাপন করা হয়েছে এবং এর উপকারিতা সম্পর্কে কৃষকদের সচেতন করা হচ্ছে। কৃষি দপ্তরের এ প্রদর্শনী দেখার পর উৎসাহিত হয়ে আন্যান্য কৃষকরা নিজ উদ্দ্যেগে আলোক ফাঁদের মাধ্যমে ক্ষতিকর পোকা নিধন করছেন।

পীরগাছা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ রফিকুল ইসলাম এর সাথে মোবাইলে কথা হলে তিনি বলেন, এবারে উপজেলায় ২০ হাজার ৫শত ৩হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধান চাষ করা হয়েছে। পোকামাকড়ের ক্ষতির হাত থেকে ফসল রক্ষায় ও পোকা দমনে কীটনাশকের ব্যবহার কমাতে পরিবেশ বান্ধব আলোক ফাঁদ স্থাপনে কৃষকদের উদ্বুদ্ধকরণে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerkagoj.com.bd/
Ajker Bangladesh Online Newspaper, We serve complete truth to our readers, Our hands are not obstructed, we can say & open our eyes. County news, Breaking news, National news, bangladeshi news, International news & reporting. 24 hours update.
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments