কাগজ প্রতিবেদক: আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, রাস্তা বন্ধ করে সমাবেশ করতে পারবে না, শুক্রবার ও শনিবার ছাড়া মহানগরে র‌্যালি করা যাবে না। বৃহস্প্রতিবার ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের পরিচালনা পরিষদের বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যারা জনগণের ভোট সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন আমি মনে করি তাদের শপথ নেওয়া উচিত। শপথ না নিলে তাদের অস্তিত্ব বিপন্ন হবে।
তিনি বলেন, বিএনপির নতুন নির্বাচনের দাবি হাস্যকর। এ নির্বাচন নিয়ে দেশে জনগণের প্রকাশ্য কোন প্রতিক্রিয়া নেই। বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তোলার অভিযোগ-অনুযোগ গণতান্ত্রিক বিশ্বেও নেই।
জনগণ যাদের প্রত্যাখ্যান করেছে তারাই এ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চাইছে উল্লেখ করে বলেন, বিদেশিদের কাছে এ নির্বাচনকে অগ্রহণযোগ্য বলে প্রশ্ন করতে পারেনি। শেষে উপায় না পেয়ে প্রেস ব্রিফিং ডেকে মিথ্যাচারের রাজনীতি শুরু করেছে।

ঐক্যফ্রন্টে ভাঙনের সুর নেই বরং সরকার ঐক্যফ্রন্ট ভাঙার চেষ্টা করছে বলে ড. কামাল হোসেন যে অভিযোগের ভিত্তিতে কাদের বলেন, তারা নিজেরাই বুঝিয়ে দিয়েছেন তাদের মাঝে ভাঙনের তাণ্ডব চলছে৷ তারা হয়তো প্রকাশ্য বলছেন না। তারা যে এলাকা থেকে নির্বাচিত তারা ভোটারদের প্রেসার আছেন। কেন্দ্রীয় নেতাদের চাপে তারা কতোদিন শপথ না নিয়ে থাকতে পারেন দেখা যাক।
সংসদে ১৪ দলের ভূমিকা কী হবে? রাশেদ খান মেননের এমন প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, তারা গঠনমূলক সমালোচনা করবেন। বিরোধীদল শুধু সরকারের সমালোচনা করবে এটা কোনভাবেই গঠনমূলক সমালোচনা হতে পারে না। তারা যে চেয়ারে আছেন সেখান থেকেই সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ রয়েছে। তারপরও আমি তাদের সঙ্গে কথা বলে দেখবো।
ভোট যদি সুষ্ঠ না হতো তাহলে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আপনি কিভাবে নির্বাচিত হলেন? আমি আপনাকে বহুবার এ প্রশ্ন করেছি, কিন্তু এবার উত্তরটা দেন নাই। এর উত্তরটা আগে দেন।

Previous articleকিডনী রোগে আক্রান্ত সাঁথিয়ার মেধাবী ছাত্রী জাকিয়া বাঁচতে চায়
Next articleচট্টগ্রামে নিজ বাসায় চিকিৎসকের লাশ উদ্ধার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।