বাংলাদেশ প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা প্রয়াত এইচ টি ইমাম ছিলেন প্রজাতন্ত্রের বর্ষীয়ান কর্মকর্তা, আবার রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডতেও কখনো সরাসরি আবার কখনোবা নেপথ্যে থেকে কাজ করেছেন জাতি ও দেশের উন্নয়নে। প্রতিথযশা এই কর্মবীরকে গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় প্রথম জানাযা শেষে, সর্বস্তরের মানুষ শ্রদ্ধা জানান কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে।

সেখানে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকেও জানানো হয় শ্রদ্ধা। দীর্ঘদিনের সহযোদ্ধাসহ হাজারো মানুষ চোখের জলে বিদায় জানান তাকে। বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) বিকেলে বনানীতে সমাহিত হন এই বীর মুক্তিযোদ্ধা।

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা এইচ টি ইমামকে দেয়া হয় গার্ড অব অনার।

শেষবারের মতো প্রিয় মানুষটিকে বিদায় জানাতে হাজার হাজার মানুষের ঢল নামে আকবর আলী সরকারি কলেজ মাঠে। বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) বেলা ১২টার দিকে হাজারো মানুষের অংশগ্রহণে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

এরপর বেলা দেড়টায় সর্বস্তরের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য এইচটি ইমামের মরদেহ নেওয়া হয়, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। এ সময়, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিবরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। আরও শ্রদ্ধা জানান, আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকসহ বিশিষ্টজনেরা।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক ও সেতু পরিবহন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি জীবনে অনেক মানুষকে দেখেছি কিন্তু এইচ টি ইমামের মতো মানুষ দেখিনি। তিনি চাকরি থেকে রিটায়ার্ড করেছেন। কিন্তু কাজ থেকে তিনি কখনও রিটায়ার্ড করেননি।’

তাঁর দীর্ঘদিনের সহকর্মীরা তো বটেই ফুল হাতে শেষ বিদায় জানাতে এসে স্মৃতিকাতর হয়েছেন ভিন্নমতের মানুষেরাও।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘উনি একজন ভালো আমলা, এটা তো না করা যাবে না। ভিন্ন মতো থাকলেও তার ব্যবহার ছিল মধুর।’

বিকেল সাড়ে ৩টায় দ্বিতীয় জানাজার জন্য তাঁর মরদেহ নেয়া হয় গুলশানের আজাদ মসজিদে। বাদ আসর সেখানে জানাযা শেষে বনানী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন এই ক্ষণজন্মা ব্যক্তিত্ব।

Previous articleকরোনার টিকা নিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
Next articleভিসি কলিমউল্লাহকে বেরোবি ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।