বাংলাদেশ প্রতিবেদক: রংপুর থেকে ঢাকায় এসে নিখোঁজ হয়েছেন ইসলামী বক্তা হিসেবে পরিচিত আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান। ১০ জুন নিখোঁজ হওয়ার আগে থেকেই দুইজন লোক তাকে অনুসরণ করেছে বলে তিনি তার মাকে জানান। এ নিয়ে তিনি চিন্তিত ছিলেন।

১০ জুন বিকালে তিনি ভাড়া করা গাড়িতে রংপুরের নিজ বাড়ি থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন। ঢাকা আসার আগে হঠাৎ মাকে বুকে জড়িয়ে খুব কান্না করছিলেন ত্ব-হা। মাকে নামাজের সেজদায় পড়ে তার নিরাপত্তা ও নিরাপদে ফিরে আসার জন্য আল্লাহর কাছে দোয়াও করতে বলেছিলেন তিনি।

ত্ব-হা আদনানের মা আজেদা বেগম জানান, ঢাকায় গেলে সে নিরাপদে থাকবে, কিন্তু কোথায় থাকবে সে বিষয়ে বাড়ির কেউ জানাতে পারেননি। বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টার দিকে তিনি তার তিন সঙ্গীসহ ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন। ১১ জুন (শুক্রবার) সাভারের একটি মসজিদে বক্তৃতা শেষ করে কিছুদিন ঢাকায় থাকার কথা ছিল তার।

তার মা জানান, ঢাকায় যাওয়ার সময় হঠাৎ তাকে বুকে জড়িয়ে খুব কান্না করছিল ত্ব-হা, নামাজে সেজদায় পড়ে তার নিরাপত্তা ও নিরাপদে ফিরে আসার জন্য আল্লাহর কাছে দোয়াও করতে বলেছিল সে। এরপর ওই রাত থেকেই তার তিন সঙ্গীসহ নিখোঁজ তার ছেলে।

পুলিশের তদন্ত দলের কাছে তথ্য মিলেছে- যে প্রাইভেট কারে আদনান ঢাকায় যাচ্ছিলেন সেটি তার নিজস্ব ছিল। তবে ওই কারটি মাঝে মধ্যে ভাড়ায় পরিচালিত হতো।

এ বিষয়ে রংপুর মহানগর পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার (কোতোয়ালি জোন) আলতাব হোসেন জানান, ত্ব-হা’র নিখোঁজের বিষয়ে থানায় জিডি করা হয়েছে। তার মা থানায় জিডিটি করেছেন। জিডির বিষয়ে তদন্ত চলছে।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (১০ জুন) বিকাল ৪টার দিকে তিন সঙ্গীসহ আদনান রংপুর থেকে ভাড়া করা একটি গাড়িতে ঢাকায় রওনা দেন। তারপর তারা নিখোঁজ হন। নিখোঁজের সময় ত্ব-হা’র সঙ্গে আব্দুল মুহিত, মোহাম্মদ ফিরোজ ও গাড়িচালক আমির উদ্দিন ফয়েজ ছিলেন। তারাও নিখোঁজ রয়েছেন।

ওই রাত থেকে সবার মোবাইল ফোনই বন্ধ রয়েছে। এ ঘটনায় শুক্রবার বিকালে রংপুর মহানগরীর কোতোয়ালি থানায় ত্ব-হা’র খোঁজ চেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন তার মা আজেদা বেগম।

Previous articleভোজ্যতেলের দাম আপাতত কমছে না: বাণিজ্যমন্ত্রী
Next articleভূঞাপুরে জুয়ার দেনা পরিশোধ করতে না পারায় জুয়াড়ির আত্মহত্যা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।