বাংলাদেশ প্রতিবেদক: আন্তর্জাতিক বাজারে না কমলে দেশের বাজারেও ভোজ্যতেলের দাম কমবে না বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) সকালে রংপুর নগরীতে নিজ বাসভবনে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, বাজারের অবস্থা জানতে প্রতি সপ্তাহে গ্লোবাল মার্কেট ও বিশ্ববাজার মনিটরিং করা হয়। বিশ্ববাজারে দাম না কমলে ভোজ্যতেলের দাম কমানো কঠিন হবে না বলে জানান মন্ত্রী।

তাছাড়া করোনাকালে জাহাজের ভাড়াও বেড়ে গেছে। যার ফলে তেল আমদানিতেও একটা প্রভাব পড়ছে।

গত ২৯ মে শনিবার থেকে বাজারে প্রতি লিটার সয়াবিন তেল ১৫৩ টাকায় বিক্রি শুরু হয়। দাম বাড়িয়ে গেল ২৭ মে এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়।

মে মাসের মাঝামাঝিতেও তেলের দাম বাড়িয়ে ১৪৪ টাকা লিটার নির্ধারণ করা হয়। এ নিয়ে গত পাঁচ মাসে মোট পাঁচ দফায় ভোজ্যতেলের দাম বাড়ানো হয়েছে। ৩০ ডিসেম্বর থেকে এখন পর্যন্ত বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম লিটারে ৩৮ টাকা (৩৩ শতাংশ) বেড়েছে। ওই সময় প্রতি লিটার তেল ১১৫ টাকায় বিক্রি হতো।

এমন সময় তেলের দাম বাড়ানো হলো যখন মানুষ মহামারির মধ্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির সঙ্গে তাল মেলাতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছে।

নতুন মূল্যতালিকা অনুসারে, পাঁচ লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল ৬৮৫ টাকা থেকে ৪৩ টাকা বাড়িয়ে এখন ৭২৮ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। এ ছাড়া প্রতি লিটার খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১২৯ টাকায়। যা আগে ১২২ টাকা লিটারে বিক্রি হতো। তবে, খোলা পাম অয়েলের দাম ১১৩ টাকা থেকে কমিয়ে ১১২ টাকা লিটার করা হয়েছে।

গত বছরের ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে প্রতি লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল ১১৫ টাকায় এবং প্রতি লিটার খোলা সয়াবিন তেল ১১০ টাকায় বিক্রি হতো। এর আগের মাসে লিটার প্রতি তেলের দাম আরও ১০ থেকে ১৫ টাকা কম ছিল।

Previous articleদেশে করোনায় আরও ৬৩ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩৮৪০
Next articleনিখোঁজের আগে মাকে বুকে জড়িয়ে কেঁদেছিলেন আবু ত্ব-হা আদনান
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।