ফ্রি স্টাইলে লুটপাটের মাঝে গণতন্ত্র চলতে পারে না: ড. কামাল

কাগজ প্রতিবেদক: ফ্রি স্টাইলে লুটপাটের মাঝে গণতন্ত্র চলতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন। রোববার গণফোরাম কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সাইফউদ্দিন আহমেদ মানিক-এর স্মরণসভায় তিনি বলেন, গণতন্ত্র চলতে পারে না যদি ফ্রি স্টাইলে লুটপাট চলতে থাকে।
গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় পুলিশেরও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে উল্লেখ করে সংবিধান প্রণেতা বলেন, গণতন্ত্র ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় অবশ্যই পুলিশের ভূমিকা আছে। সবাই চায় পুলিশ তার শপথ মেনে দায়িত্ব পালন করুক। দেশের জনগণকে শ্রদ্ধা করুক, কারণ জনগণ ক্ষমতার মালিক।
ড. কামাল হোসেন আরো বলেন, সরকার যদি নিজেকে জনগণের সরকার মনে করেন অবশ্যই বৈষম্য হ্রাস করবেন। কেউ দরিদ্র থাকবে আর কেউ সম্পদের পাহাড় গড়বে এটা স্বাধীন দেশে কাম্য নয়। এ সময় তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, সবাই মিলে ঐক্যবদ্ধ হলে আমরা সফল হব।
নির্বাচন প্রসঙ্গে ড. কামাল হোসেন বলেন, নির্বাচনে গলদ থাকলে সেখানে অবশ্যই বির্তক থাকে। জনগণ আশা করে, যিনি সরকারে আছেন তিনি সংবিধানের ভিত্তিতে দায়িত্ব পালন করবেন। কারণ জনগণ রাষ্ট্রের মালিক।
তিনি বলেন, সংবিধানে যে বলা আছে, যারা আমাদের দেশ শাসন করবে তাদের নির্বাচিত হতে হবে। তাদেরই দেশের মালিক হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে হবে।
সবাইকে নাগরিক হিসেবে সঠিক দায়িত্ব পালনের পরামর্শ দিয়ে বলেন, ২০২১ সালে আমাদের স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পূর্তি হবে। এই সময়ে মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত উদ্দেশ্যকে ধারণ করে এগোতে হবে।
স্মরণসভায় সভাপতির বক্তব্যে ড. কামাল আরো বলেন, আমরা স্বাধীন দেশ পেয়েছি অসাধারণ ত্যাগ স্বীকার করে। অনেক মূল্য দিয়েছি। নাগরিকদের সর্তকভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। যে সরকার বা যারাই এখানে দাযিত্ব নেবে তারা সংবিধানের ভিত্তিতে দায়িত্ব নিক। সংবিধানে আছে, দেশে কার্যকর গণতন্ত্র থাকবে, নামকাওয়াস্তে গণতন্ত্র না। তিনি বলেন, জগণের শাসক হিসাবে তিনি অবশ্যই চাইবেন সুশাসন হোক। আইনের শাসন হোক।
স্মরণসভায় গণফোরাম অন্যান্য নেতাদের মধ্যে অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, মফিজুল ইসলাম খান কামাল, মোকাব্বির খান, জগলুল হায়দার আফ্রিক, আ.ও.ম শফিক উল্লাহ, সাইদুর রহমান সাইদ, মোশতাক আহমদ, খান সিদ্দিকুর রহমান, সাইদুর রহমান সাইদ, রফিকুল ইসলাম পথিক, মিজানুর রহমান মিজান অ্যডভোকেট মোঃ জানে আলম, মুহম্মদ রওশন ইয়াজদানী প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।