বাংলাদেশ প্রতিবেদক: চট্টগ্রামের চন্দনাইশে পৌরসভা নির্বাচন ঘিরে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে বড় ধরনের নাশকতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে বলে ২০ দলীয় জোটের শরিক এলডিপির বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া গেছে। দলটির চেয়ারম্যান কর্নেল অবসরপ্রাপ্ত অলি আহম্মদের সঙ্গে চট্টগ্রামের সাবেক এক ছাত্রদল নেতার ফোনালাপে ফাঁস হয়ে যায় এ পরিকল্পনা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া এই টেলিফোন রহস্যের অনুসন্ধানে মাঠে নেমেছে পুলিশ।

২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরীক এলডিপি চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল অলি আহম্মদের সাথে সাবেক ছাত্রদল নেতা বর্তমানে এলডিপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত জসীমের টেলিফোন কথপোকথন। গত দুদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভেসে বেড়াচ্ছে এ ফোনালাপ। এমনকি আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তাদের হাতেও পৌঁছেছে এ পরিকল্পনার তথ্য।

সময় সংবাদকে চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি আনোয়ার হোসেন বলেন, টেলিফোনের এ কনভারসেশনটা হাতে পেয়েছি, এটা পেয়ে অনুসন্ধান কাজ শুরু করেছি। এখানে কে কে কনভারনেশনে সংযোগ হয়েছে এটা নিশ্চিত হওয়ার জন্য আমরা চেষ্টা করছি। আর নিশ্চিত হওয়ার পর যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি অলি আহম্মদের সংসদীয় আসন চন্দনাইশসহ দক্ষিণ চট্টগ্রামের কয়েকটি পৌর সভার নির্বাচন। আর এসব এলাকায় ব্যাপক আধিপত্য রয়েছে এলডিপির। পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে পরিস্থিতি ঘোলাটে করতে চায় বলে অভিযোগ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর। তবে অলি আহম্মদকে ফোন দিয়ে নাশকতার পরিকল্পনার কথা অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত জসীম।

চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি আনোয়ার হোসেন আরো বলেন, টার্গেট করে ইচ্ছাকৃতভাবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মনোবল ভেঙে দেওয়ার জন্য এ পরিকল্পনা। অতীতে অনেকবার হামলা করেছে, সব নিয়ে কিন্তু আমরা নিরাপত্তার পরিকল্পনা প্রণয়ন করবো।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন নেতাদের মধ্যে অন্যতম অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল অলি আহম্মদ। পরবর্তীতে মতবিরোধের কারণে বিএনপি ছেড়ে এলডিপি গঠন করেন তিনি। তবে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরীক এলডিপি।