বাংলাদেশ প্রতিবেদক: বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেছেন, ১৯৭৪ সালে ছিল আওয়ামী লীগের এনালগ লঙ্গরখানা আর বর্তমানে চলছে ডিজিটাল লঙ্গরখানা। এটা দিয়ে দেশ চলতে পারে না।

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা থাকবে ভিআইপিখানায় আর সাধারণ জনগণ থাকবেন লঙ্গরখানায়। তারা গড়বে বেগমপাড়া আর সাধারণ জনগণ খাবার পাবে না। সামনে রমজান আসছে, একমুঠো চালের জন্য হাহাকার করে সাধারণ মানুষ। এভা‌বে দেশ চল‌তে পা‌রে না।’

শুক্রবার (১ এপ্রিল) জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সালাম হলে যুব ঐক্য পরিষদ আয়োজিত বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনুর নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে এক প্রতিবাদ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আলাল বলেন, ‘১৯৭৪ সালের লঙ্গরখানা, খাবার নিয়ে কুকুর-মানুষের যে কাড়াকাড়ি, বর্তমানে টিসিবির পিছনে মানুষের লাইন, সেই দৌড়াদৌড়ি। যখন দেখি সন্তানকে পাশে রেখে মা টিসিবির লাইনে দাঁড়িয়েছে। মায়ের কষ্ট দেখে সন্তানও অন্য লাইনে দাঁড়িয়েছে। এর চেয়ে কষ্ট আর কি হতে পারে। এরপরও জাতীয় সংসদে দাঁড়িয়ে নির্লজ্জের মতো বলে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায় আছে।’

বাংলাদেশটাই একটা কারাগার মন্তব্য করে আলাল বলেন, ‘মজনুসহ যারা কারাগারে রয়েছে তাদের সবাইকে মুক্ত করতে হবে। শুধু তাই নয়, হাজার হাজার আলেম-ওলামা আজ কারাগারে রয়েছেন। এই পবিত্র রমজান মাসে তাদের বয়ান আমাদের শোনার কথা। তারা কারাগারে, তাদেরকেও মুক্ত করতে হবে।’

প্রতিবাদ সভায় আরো উপ‌স্থিত ছি‌লেন ঢাকা মহানগর দ‌ক্ষিণ বিএন‌পির আহ্বায়ক আব্দুস সালাম, যুবদল ঢাকা দক্ষিণের আহ্বায়ক গোলাম মাওলা শাহীন, যুবদল ঢাকা দক্ষিণ সদস্য সচিব খন্দকার এনামুল হক এনাম প্রমুখ।

Previous articleউলিপুরে একই জমিতে ধান ও মাছের চাষ, সাফল্য দেখছেন কৃষক
Next articleরোজার মহিমায় মুগ্ধ হয়ে ইসলাম গ্রহণ করেন এই তরুণী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।