বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ‘বিএনপির আন্দোলনের সাথে জনগণের সম্পৃক্ততা নেই’ মন্তব্য করে শিক্ষামন্ত্রী ডাক্তার দীপু মনি বলেছেন, তারা গণতন্ত্র হত্যা করে এখন তা নিয়ে মায়া কান্না করছে। বিএনপি দেশকে অস্থিতিশীল করার হুমকি দিচ্ছে। দেশের মানুষ শান্তি চায়, স্থিতিশীলতা চায় কিন্তু বিএনপি জনগণের চাওয়ার ঠিক উল্টোটা করতে চায়। তারা অগ্নিসংযোগকারী, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধ্বংসকারী। তাদের কাছ থেকে ভালো কিছু আশা করা যায় না। শিক্ষামন্ত্রীর দাবি- বিএনপির আন্দোলনের সাথে জনগণের সম্পৃক্ততা নেই। এ ধরনের আন্দোলন কখনো গণআন্দোলনে রূপ নেয় না।

বুধবার সকালে যশোর সরকারি এমএম কলেজে মতবিনিময়কালে বিএনপির ১০ ডিসেম্বরে কর্মসূচি ঘিরে সরকার পতনের হুমকি প্রসঙ্গে দীপু মনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আগামী ৬ নভেম্বর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হবে। বিএনপির প্রতি আহ্বান থাকবে শিক্ষার্থীদের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়েই যেন তারা কর্মসূচি ঘোষণা করে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ডক্টর মশিউর রহমান, যশোর শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ডক্টর আহসান হাবীব, এমএম কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মর্জিনা আক্তার প্রমুখ। এর আগে যশোর সার্কিট হাউসে শিক্ষকদের বিভিন্ন সংগঠন শিক্ষামন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়।

এদিন দুপুরে যশোরের শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়া (বাগুড়ী) ডক্টর মশিউর রহমান মহিলা কলেজের একাডেমিক ভবন উদ্বোধন শেষে কলেজ মাঠে আয়োজিত সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন শিক্ষামন্ত্রী। এখানে তিনি বলেন, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার উন্নয়নবান্ধব ও শিক্ষাবান্ধব।

স্থানীয় সরকার বিভাগ যশোরের উপপরিচালক হুসাইন শওকতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন যশোর-১ আসনের (শার্শা) সংসদ সদস্য শেখ আফিল উদ্দিন, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডক্টর মশিউর রহমান, সাবেক রাষ্ট্রদূত মুন্সি ফয়েজ আহম্মেদ, শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও শার্শা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু ও কলেজের প্রতিষ্ঠাতা নাসা বিজ্ঞানী ডক্টর মশিউর রহমান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ইব্রাহীম খলিল, সাংগাঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, সাবেক ভাইস চেয়াম্যান আসাদুজ্জামান বাবলু, মহিলা ভাইস চেয়াম্যান আলেয়া ফেরদৌস, কায়বা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান হাসান ফিরোজ আহমেদ (টিংকু), সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক ও শ্রমিক নেতা নাসির উদ্দীন, বাগআঁচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও সাবেক চেয়ারম্যান জনাব ইলিয়াছ কবির (বকুল), গোগা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তবিবুর রহমান, কেরালকাতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ভি.পি স.ম মোরশেদ আলম, শার্শা যুবলীগের সভাপতি ওহিদুজ্জামান, সাধারন সম্পাদক ও সাবেক চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন, বেনোপোল পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব এনামুল হক মুকুল, সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব নাসির উদ্দীন ও শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার।

Previous articleকলাপাড়ায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন বিষয়ক আলোচনা সভা
Next articleহাতিয়াতে ২৮০০ লিটার চোরাই তেল জব্দ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।