বাংলাদেশ ডেস্ক: সপ্তম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে গতকাল শনিবার নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এ ম্যাচ দিয়ে অবসরে গেছেন অলরাউন্ডার ডোয়াইন ব্রাভো। আর এটি ছিলো ক্রিস গেইলের জন্য বিশ্বকাপের মঞ্চে শেষ ম্যাচ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে লড়াই শেষে নিজের ক্যারিয়ার নিয়ে কথা বলেন গেইল। জানান, অবসর নয়, এটিই ছিলো বিশ্বকাপে আমার শেষ ম্যাচ। জ্যামাইকার মাটিতে ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচ খেলতে চান।

এবারের বিশ্বকাপটা মোটেও ভালো যায়নি গেইলের। পাঁচ ইনিংসে ৪৫ রান করেছেন তিনি। তবে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে দারুণ শুরু ছিলো গেইলের। দুটি ছক্কায় রানের চাকা সচল করেছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ১৫ রানে আউট হন। আউট হওয়ার পর ব্যাট ও হেলমেট উচিয়ে দু’হাত প্রসারিত করে মাঠ ছাড়েন গেইল। ডাগ আউটে থাকা সতীর্থরা দাঁড়িয়ে অভিবাদনও দিয়েছেন। এতে ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ ও ক্রিকেটপ্রেমিদের মনে প্রশ্ন জাগে, তবে কি ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে শেষ ম্যাচ খেলে ফেলেছেন গেইল! ম্যাচ শেষে নিজের ক্যারিয়ার পরিকল্পনা নিয়ে উত্তর দিলেন গেইল।

তিনি বলেন, ‘মাঠে যা হচ্ছিল তা একপাশে রেখে সবাই ম্যাচটি উপভোগ করেছি। দর্শকদের সাড়া দিচ্ছিলাম, মজা করছিলাম। এটা আমার শেষ বিশ্বকাপ ম্যাচ। আমি অবশ্য আরো একটি বিশ্বকাপ খেলতে চাই। কিন্তু মনে হয় না আমার সেই সুযোগ হবে (হাসি)।’

আইসিসি ফেসবুক লাইভ চ্যাটে গেইল আরো বলেন, অসাধারণ একটি ক্যারিয়ার আমার। তবে আমি কোনো অবসর ঘোষণা করিনি। কিন্তু তারা আমাকে যদি জ্যামাইকায় আমার ঘরের দর্শকদের সামনে একটি ম্যাচ খেলা সুযোগ দেয়, তাহলে আমি বলতে পারবো ‘হে বন্ধুরা, আপনাদের অনেক ধন্যবাদ।’

তিনি বলেন, ‘দেশের হয়ে খেলতে পারাটা আনন্দের ছিলো। আমি ওয়েস্ট ইন্ডিজকে নিয়ে সবসময়ই উৎসাহী ছিলাম। এটা সত্যিই খারাপ লাগে যখন আমরা ম্যাচ হারি এবং আমরা ফলাফল পাই না এবং ভক্তরা আমার কাছে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ কারণ আমি একজন বিনোদনকারী। কিন্তু আমি যখন তাদের বিনোদনের সুযোগ দিতে পারি না, সেটি আমাকে অনেক বেশি কষ্ট দেয়। আপনি হয়তো সেই হতাশা দেখতে পাচ্ছেন না, আমি হয়তো সেরকম আবেগ দেখাতে পারবো না। কিন্তু আমি ভক্তদের জন্য, বিশেষ করে এই বিশ্বকাপে হতাশ হয়ে গেছি।’

এবারের বিশ্বকাপ যে হতাশার ছিলো সেটিও অকপটে স্বীকার করেছেন গেইল। তিনি বলেন, ‘এটি আমাদের জন্য অনেক হতাশাজনক বিশ্বকাপ ছিল। বিশেষ করে আমার জন্য। আমার সবচেয়ে খারাপ বিশ্বকাপ। আমাদের আরো অনেকদূর যেতে হবে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেটে অনেক মেধা রয়েছে। তাদের প্রতি সমর্থন জানাই, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেটকে শুভকামনা জানাই।’

১৯৯৯ সালে ওয়ানডে দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পথচলা শুরু হয় গেইলের। এরপর ২০০০ সালে টেস্ট এবং ২০০৬ সালে টি-টোয়েন্টি খেলতে নামেন। ২০১৪ সালের পর আর টেস্ট খেলেননি গেইল। গত ২০১৯ সালের আগস্টের পর থেকে ওয়ানডে দলের বাইরে গেইল।

২২ বছরের বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে দেশের হয়ে ১০৩ টেস্টে ১৫টি সেঞ্চুরি ও ৩৭টি হাফ-সেঞ্চুরিতে ৭২১৪ রান করেছেন গেইল। ৩০১ ওয়ানডেতে ১০৪৮০ রান আছে তার। সেঞ্চুরি ২৫ ও হাফ-সেঞ্চুরি ৫৪টি। ৭৯ ম্যাচের টি-টোয়েন্টিতে দুটি সেঞ্চুরি ও ১৪টি হাফ-সেঞ্চুরিতে ১৮৯৯ রান করেছেন এই বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান।

Previous articleপূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের আগে ফাঁসি কার্যকর নয়: আপিল বিভাগ
Next articleদেশে করোনায় ৪ জনের মৃত্যু
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।