শরীয়তপুর প্রতিনিধি: শরীয়তপুরের পালং বাজারে ভয়াবহ আগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ হয়ে দুই দোকান কর্মচারীর মৃত্যু হয়েছে। আজ শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে এ অগ্নিকাণ্ডে কাপড়ের দোকান, মিষ্টির দোকান, স্বর্ণের দোকান ও বসতবাড়িসহ অন্তত ১৫টি দোকান পুড়ে ভস্মীভূত হয়েছে।

পুলিশ, পালং বাজার ব্যবসায়ী ও স্থানীয়রা জানান, ভোর রাত ৪টার দিকে হঠাৎ একটি দোকানে আগুন দেখতে পান বাজার পাহাদাররা। সাথে সাথে ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে একটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে। পরে ডামুড্যা, গোসাইরহাট ও মাদারীপুর থেকে আরও ৩টি ইউনিট তাদের সাথে যোগ দেয়। প্রায় ২ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে স্বক্ষম হন ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা। তবে এই সময়ের মধ্যে বাজারের ২টি কাপড়ের দোকান, স্বর্ণের দোকান, পাইকারী মুদি দোকান, ৪টি বসত বাড়িসহ অন্তত ১৫টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে প্রায় ২০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন বাজারের ব্যবসায়ীরা।

এসময় একটি মিষ্টির দোকানে আটকা পরায় আগুনে পুড়ে ২ জন নিহত হয়েছেন। তারা হলেন- মাদারীপুর জেলার রাজৈর থানার কমলাপুর গ্রামের সুখচাঁদ বৈরাগির ছেলে পলাশ বৈরাগী (২৫) ও রবি সরকারের ছেলে বিশ্বজিৎ সরকার (২০)।

জানা যায়, পালং উত্তর বাজারের গোপাল ঘোষের মিষ্টির দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। দোকানের ভেতর ঘুমিয়ে থাকা দুই কর্মচারী পলাশ ও বিশ্বজিৎ অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যান। সকালে পুলিশ তাদের লাশ উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে নিয়ে যান।

পালং মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান বলেন, অগ্নিকাণ্ডের বিষয়ে এখানো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে দুইজন দোকান কর্মচারীর মৃত্যু হয়েছে। তাদের ময়নাতদন্ত করার জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছেন।