মারুফা মির্জা: সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুরে নির্বাচনের আগে ছাত্রলীগ কর্মীকে মারধরের ঘটনায় বিএনপি নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার আসামী বিএনপি কর্মী নবা হোসেনকে আটকের পর থানা থেকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ। মামলার তদন্ত কর্মকর্তার সাথে যোগসাজোশে তাকে ছাড়িয়ে নিতে মুল ভুমিকা পালন করেছে থানা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক মেহেদী হাসান তুষার। এ নিয়ে এলাকা জুড়ে সমালোচনার ঝড় বইছে। জানা যায়, গত ২৭ ডিসেম্বর বিকেলে বিএনপির একটি নির্বাচনী প্রচার মিছিল শিবপুর থেকে গোপিনাথপুর এলে কর্মী সমর্থকরা ছাত্রলীগ কর্মী কাউছার হোসেনকে মারধর করে। এঘটনায় ঐ দিন রাতে এনায়েতপুর থানায় বাদী হয়ে স্থানীয় যুবলীগ নেতা মুছা ব্যাপারী বাদী হয়ে এনায়েতপুর থানায় ৩৭ জন বিএনপি নেতা-কর্মীকে আসামী করে মামলা দায়ের করে। এ মামলার আসামী নবা হোসেন মঙ্গলবার দুপুরে গোপিনাথপুর বাজারের নিজ দোকানে অবস্থান কালে মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মাহবুব হাসান তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এর পরপরই এনায়েতপুর থানা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক মেহেদী হাসান তুষারের নেতৃত্বে আওয়ামীলীগের আরো কজন নেতা কর্মীরা থানায় গিয়ে এসআই মাহবুব হাসানের সাথে দেন-দরবার করে ছাড়িয়ে নিয়ে আসে। এ ব্যাপারে আওয়ামীলীগ নেতা মেহেদী হাসান তুষার জানান, বিএনপি কর্মী ও মামলার আসামী নবা হোসেনকে আমরা থানা থেকে ছাড়িয়ে এনেছি। তাদের সাথে আপোষের কথা হওয়ায় আমি গিয়ে পুলিশের কাছ থেকে ছাড়িয়ে এনেছি। এদিকে থানায় ধরে আনা মামলার আসামীকে ছেড়ে দেয়ার বিধান না থাকলেও এনায়েতপুর থানা পুলিশ তা মানেনি। এনায়েতপুর থানার এসআই মাহবুব হাসান জানান, আমরা তাকে ধরেছিলাম। হার্ডের অসুখ হওয়ায় থানায় না এনে ছেড়ে দিয়েছি। বিষয়টি নিয়ে এলাকা জুড়ে সমালোচনার ঝড় বইছে। ঘটনার বিষয়ে এনায়েতপুর থানার ওসি মাহবুবুল আলম জানান, আমি কর্মস্থলে না থাকায় বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত নই।

Previous article৭২ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও কেটে নেওয়া পা উদ্ধার হয়নি
Next articleবরিশালে ৩ দিনেও উদ্ধার হয়নি অপহৃত শিশু
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।