কাগজ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি নাজমুল হাসান সবুজের হাতের রগ কেটে দিয়েছে যুবলীগ নেতা ও তার সহযোগীরা। এ সময় বসতবাড়িতে হামলা-ভাঙচুর, লুটপাটসহ আরও কয়েকজনকে কুপিয়ে জখম করে তারা। সোমবার রাতে উপজেলার ভুলতা ইউনিয়নের পাচাঁইখা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
আহত ছাত্রলীগ নেতার ভাই রাসেল মিয়া জানান, তার ছোট ভাই উপজেলা ছাত্রলীগের বর্তমান সহ-সভাপতি নাজমুল হাসান সবুজ স্থানীয় মনির মেম্বারের একটি জলাশয়ে বালি ভরাটের কাজ করছিলেন। সোমবার সকালে কাজে বাধা দিয়ে রাসেলের কাছে চাঁদা দাবি করেন একই এলাকার বাসিন্দা উপজেলা যুবলীগের ত্রান বিষয়ক সম্পাদক বাচ্চু মিয়া। পরে সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরে সবুজ বাচ্চ মিয়া ও তার ছেলে এমরান কাজে বাধা দেয়ার কারন জানতে চায়। এ নিয়ে উভয়ের মাঝে তর্কবিতর্ক বাধে।
এই ঘটনার জের ধরে রাত পৌনে ৮টার দিকে বাচ্চুর নেতৃত্বে ইমরান, ইমু, রিপন, সজিব, টিপুসহ আরও কয়েকজন অস্ত্রেসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সবুজদের বাড়িতে হামলা চালায়। বাড়িতে ঢুকেই ভাঙচুর শুরু করে। একপর্যায়ে সবুজকে ঘর থেকে বের করে এনে কুপিয়ে তার বাম হাতের বাহুর রগ কেটে দেয়। এ সময় তাকে উদ্ধার করতে সবুজের ভাই মানিক ও জাহিদুল এবং ভাবি মমতাজ এগিয়ে এলে হামলাকারীরা তাদেরকেও পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে।
হামলাকারীরা নগদ টাকাসহ অন্তত: ৭ লাখ টাকার মালামাল লুট করেছে বলে দাবি করেন রাসেল মিয়া। এ ঘটনায় রাসেল মিয়া বাদি হয়ে রূপগঞ্জ থানায় মামলা করেছেন। এ ব্যাপারে থানার অফিসার ইনচার্জ মাহামুদুল ইসলাম বলেন, ছাত্রলীগ নেতা সবুজকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় থানায় নিয়মিত মামলা রুজু হয়েছে। হামলাকারীরা এলাকাছাড়া রয়েছে। তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

Previous articleফেসবুক লাইভে এসে ছাত্রলীগ নেত্রীর কান্নাকাটি ভাইরাল
Next articleবাকৃবিতে উদ্ভাবিত হলো পাংগাসের আচার ও পাউডার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।