লাল মিয়া পাগলা

হুমায়ুন কবির: নেত্রকোণার কেন্দুয়ার লাল মিয়া পাগলের মরদেহ নিয়ে দুপক্ষের টানাটানির পর অবশেষে ডিসির নির্দেশে রোববার(১৪ এপ্রিল) রাত ১০টায় উপজেলার পাইকুড়া ইউনিয়নের চিটুয়া নওপাড়া গ্রামে তার নিজ বাড়িতে দাফন সম্পন্ন হয়েছে। মরহুমের নামাজের জানাযায় ভক্ত আশেকানসহ বিপুল পরিমান মানুষ অংশ নেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পাইকুড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির চৌধুরী। জানা গেছে নেত্রকোণার কেন্দুূয়া উপজেলার পাইকুড়া ইউনিয়নের চিটুয়া নওপাড়া গ্রামের বাসিন্দা লাল মিয়া পাগলা ওরফে মোটা মামা নামে পরিচিত সংসার ত্যাগী হয়ে তিনি ৩০/৩৫ বছর ধরে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় পাগল বেশে ঘুরে বেড়াতেন। তিনি দীর্ঘ দিন ধরে উপজেলার সান্দিকোনা গ্রামের মরহুম ইনছান মিয়ার বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। একজন আধ্যাত্মিক সাধক হিসাবে এলাকায় তার বহু ভক্ত আশেকান তৈরি হয়। তার বাড়িতে মাজার প্রতিষ্ঠা করে কয়েক বছর ধরে বাৎসরিক ওরসও পালিত হয়ে আসছিল। সান্দিকোনা গ্রামে থাকা অবস্থায় গত শুক্রবার (১২ এপ্রিল) রাত ১০টার দিকে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। তার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে ভক্ত আশেকানসহ পরিবারের লোকজন ছুটে আসেন। এদিকে লাল মিয়া পাগলের ভাই মোসলেম উদ্দিনসহ পরিবারের লোকেরা মরদেহ বাড়িতে নিয়ে দাফন করতে চাইলে সান্দিকোনার ভক্তরা মরদহে দিতে রাজি হননি। তাদের প্রিয় আধ্যাত্মিক সাধকের মরদেহ সান্দিকোনাতেই দাফন করতে অনড় থাকেন। পরে দুই ইউপি চেয়ারম্যানসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তি ও পুলিশ প্রশাসনের লোকেরা শুক্র ও শনিবার ২ দিন অনেক চেষ্টা করেও সিদ্ধান্ত দিতে না পারায় পুলিশ মরদেহ নেত্রকোণা মর্গে পাঠান। পরে ভক্ত ও স্বজনদের আবেদনের প্রেক্ষিতে নেত্রকোণা জেলা প্রশাসক (ডিসি) মঈনউল ইসলাম লাল মিয়া পাগলার মরদেহ চিটুয়া নওপাড়ায় তার নিজ বাড়িতে দাফন করার জন্য মরহুমের ভাই মুসলিম উদ্দিনের নিকট হস্তান্তর করেন। রোববার রাত ১০ টায় তার বাড়ির আঙ্গিনায় নামাজের জানাযা শেষে দাফন সম্পন্ন হয়।

Previous articleসাঁথিয়ায় নববর্ষের দিনে এক প্রতিবন্ধী যুবতীকে গণধর্ষণ
Next articleপাবনায় সপ্তম শ্রেণির স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।