কামাল সিদ্দিকী: এবার পাবনার আমিনপুরে অটোরিক্সা যাত্রী সপ্তম শ্রেণির স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের করেছে অটোচালক ও তার এক সহযোগী। এ ঘটনায় ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। সোমবার দুপুরে তাকে মেডিক্যাল পরীক্ষার জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রী পাবনার বেড়া উপজেলার আলহাজ¦ ইমান আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী। নির্যাতিত স্কুল শিক্ষার্থী জানায়, রোববার নববর্ষের দিন বিকেলে আমিনপুর থানার দিঘলকান্দি এলাকার বোনের বাড়ি থেকে বাঘলপুর গ্রামের নিজ বাড়িতে ফেরার উদ্দেশ্যে সিএনজি অটোরিক্সা যোগে রওনা হয়। কিছু পথ অতিক্রমের পর চালক আলামিন ও তার বন্ধু জহুরুল অটোরিক্সাটি একটি নির্জন বাবলা বাগানের মধ্যে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে ফেলে রেখে যায়। পড়ে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বাড়ি পৌঁছে দেয়। নির্যাতিতা স্কুলছাত্রীর মা জানান, অসুস্থ অবস্থায় ঘটনার দিন বিকেলে আমার মেয়েকে কয়েকজন লোক বাড়ি পৌঁছে দেয়। মেয়ের নিকট থেকে ঘটনার বিস্তারিত জানার পর আমিনপুর থানায় আমি নিজে বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছি। তিনি বলেন, দিনে দুপুরে যারা আমার মেয়ের উপর এমন পাশাবিক অত্যাচার চালিয়েছে, তাদের কঠিন শাস্তি চাই। সোমবার বিকেল চারটা পর্যন্ত পুলিশ এ ঘটনার জড়িত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। আমিনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম সোমবার দুপুরে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, নির্যাতিতা শিক্ষার্থীর কাছ থেকে ঘটনার বিস্তারিত শুনেছি। পরিবারের পক্ষ থেকে রাতেই নারী ও নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে একাধিক টিম মাঠে নেমেছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে তাদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানান ওসি মনিরুল ইসলাম। সোমবার দুপুরে নির্যাতিতা শিক্ষার্থীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

Previous articleঅবশেষে ডিসির নির্দেশে কেন্দুয়ার লাল মিয়া পাগলার দাফন সম্পন্ন
Next articleধর্ষকদের হাত কামড়িয়ে মসজিদে আশ্রয় নিল তরুণী, বান্ধবীকে গণধর্ষণ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।