কাগজ প্রতিনিধি: চাঁপাইনবাবগঞ্জে এক তরুণীকে ধর্ষণের পর হত্যার মামলায় ৫ জনকে মৃত্যুণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে তাদের এক লাখ টাকা করে অর্থদণ্ড দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোঃ শওকত আলী এ রায় দেন। অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় আদালত ৩ জনকে বেকসুর খালাস দেন।

দণ্ডপ্রপ্তরা হলেন- চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার মালবাগডাঙ্গা গ্রামের নয়ন কর্মকার রবিদাস, সোনাপট্টি গ্রামের প্রশান্ত রবিদাস, চাকপাড়া

গ্রামের নিতাইচন্দ্র রবিদাস, সুভাষ দাস (৪২) ও প্রশান্ত রবিদাস (২৪)। রায় ঘোষনার সময় আসামীদের মধ্যে নয়ন কুমার রবিদাস ও প্রশান্ত রবিদাস (২২) উপস্থিত ছিলেন। অন্যরা পলাতক রয়েছেন।

মামলার এজাহারের বরাত দিয়ে অতিরিক্ত পিপি আঞ্জুমান আরা বেগম জানান, ২০১৫ সালের ১৪ জুন সদর উপজেলার মহারাজপুর মেলার মোড়ের একটি ডোবা থেকে পুলিশ সদর উপজেলার কালিনগর বাবলাবোনা গ্রামের মফিজুল ইসলামের মেয়ে আয়েশা খাতুনের (২০) মরদেহ উদ্ধার করে। প্রথমে তার মৃত্যুর কারণ জানা না গেলেও ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে ধর্ষণের পর হত্যার কথা উল্লেখ থাকায় ওই বছরের ১৫ আগস্ট সদর থানার এসআই শামীম আকতার অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে।

পরবর্তীতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সদর থানার পরিদর্শক সারোয়ার রহমান একই বছরের ১৪ ডিসেম্বর ৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়, আসামী নয়ন প্রেমের সম্পর্কের স‚ত্র ধরে আয়েশা খাতুনকে ১৩ জুন ডেকে সহযোগিদের নিয়ে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করে।

রায় ঘোষণার সময় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। ২০১৫ সালে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

Previous articleদিনাজপুরে বাসের ধাক্কায় বাবা-মেয়েসহ নিহত ৩
Next articleআমাকে বাথরুম থেকে নগ্ন অবস্থায় বের করে নির্যাতন করা হয়: মিলা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।