কনের বাড়ি পুলিশ আসছে খবর পেয়ে পালাল বর ও বরযাত্রী

হুমায়ুন কবির: শিশু বিয়ে অপরাধ হলেও সচেতনতার অভাবে তা একেবারে বন্ধ হচ্ছে না। ফলে খবর পেয়েই প্রশাসনকে ছুটোছুটি করতে হচ্ছে প্রতিনিয়ত। আর কনের বড়িতে পুলিশ আসছে খবর পেয়েই রাস্তা থেকে পালালো শিশু বর। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাতে নেত্রকোনার প্রত্যন্ত অঞ্চল খালিয়াজুরি উপজেলার মেন্দিপুর ইউনিয়নের খলাপাড়া গ্রামে।

জানা গেছে, খালিয়াজুরী উপজেলার মেন্দিপুর ইউনিয়নের খলাপাড়া গ্রামের ঝুটন সরকারের বাড়িতে বিয়েটির আয়োজন হয়েছিল শুক্রবার দিবাগত রাতে। বিয়ের কনে শিশুটি ছিল পাশের সঁাতগাও এমবিপি উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী।
স্থানীয়রা জানান, সপ্তাহ খানেক পূর্বে ওই ছাত্রীর বিয়ের বাগদান সম্পন্ন হয়েছিল কিশোরগঞ্জের এক বরের সঙ্গে।
সেই বরের সঙ্গে সাতপাক আর মালা বদলের মাধ্যমে সিদুরদান হবার কথা ছিল শুক্রবার (৩১ মে) রাত ১০ টায়। বিয়ে সম্পন্ন করতে বরসহ বরযাত্রী রওয়ানাও দিয়েছিলেন বিয়ে বাড়ির উদ্দেশ্যে।
কিন্ত বিয়ে বাড়িতে হঠাৎ পুলিশ এসে উপস্থিত হওয়ায় বর আর ববযাত্রী ফিরে যায়।
তবে বরযাত্রীর পরিচয় স্বীকার করেনি কনে পক্ষ।
খালিয়াজুরী থানার এস আই মো. মোহর আলী জানান, স্বাবলম্বীর শিশু বিয়ে রোধ প্রকল্পের উপজেলা সমন্নয়কারি মহসিন মিয়ার মাধ্যমে খবর পান এইএনও এএইচএম আরিফুল ইসলাম।
তাৎক্ষণিক তিনি সহ পুলিশ নিয়ে বিয়ে বাড়িতে গিয়ে বিয়েটি বন্ধ করা হয়। এ সময় বিয়ে বড়িতে আসতে চাওয়া বরসহ বরযাত্রী খবর পেয়েই রাস্তা থেকেই পালিয়ে যায়।
তিনি আরো জানান, মেয়ের বয়স ১৮ বছরের নীচে হওয়ায় তার বিয়ে দেয়ার প্রস্তুতি নেয়া ছিল আইনি ভাবে অপরাধ।