ডোমারে স্বামীর প্রতি অভিমান করে স্ত্রী’র আত্মহত্যা

মহিনুল ইসলাম সুজন: মাত্র আট মাস আগে বিয়ে হয় পিংকি আক্তারের (১৮)। বিয়ের এক বছর পুর্ণ না হতেই মঙ্গলবার(১৮জুন) দুপুরে স্বামীর বাড়ির নিজ শোয়ার ঘরে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় পাওয়া যায় একটি চিরকুট। সেখানে লেখা ছিল “তোমার জেদ নিয়ে তুমি থাকো, আমি চলে গেলাম।চিরকুটটি যে পিংকি তার স্বামীর উদ্যেশেই লিখে গেছে তা স্পষ্ট হয়ে উঠে। নিহত পিংকি নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার সদর ইউনিয়নের ছায়াপাড়া গ্রামের সাজেদুল ইসলামের স্ত্রী ও একই উপজেলার বসতপাড়া গ্রামের আউয়াল হোসেনের মেয়ে। পিংকির শ্বশুর বাড়ির লোকজন জানায়, ঘটনার দিন সে সকালে ঘুম থেকে উঠে স্বাভাবিক ভাবেই সংসারের কাজকর্ম করেন। তার স্বামী কাজের জন্য বাড়ি হতে বেরিয়ে যায়। এরপর পিংকি অন্যান্য দিনের মত নিজ ঘরের দরজা বন্ধ করে পুনরায় ঘুমাতে যায়। দুপুর ১টা বেজে গেলেও পিংকির কোন সাড়া না পাওয়ায় পরিবারের লোকজন ডাকাডাকি করেও সাড়া শব্দ না পেয়ে ঘরের জানালার কপাট সরিয়ে দেখে ঘরের ভেতর পিংকির লাশ ঝুলছে। এ সময় পরিবারের লোকদের আতœচিৎকারে গ্রামবাসী ছুটে এসে পুলিশকে খবর দিলে তাৎক্ষনিকভাবে খবর পেয়ে ডোমার থানা পুলিশ এসে ঘরের দরজা ভেঙ্গে গলায় ওড়না পেচানো পিংকির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে।এসময় ওই চিরকুটটি পুলিশ পেয়ে জব্দ করে। ডোমার থানার মোস্তাফিজার রহমান বলেন, চিরকুটির লেখা অনুযায়ী মনে হচ্ছে স্বামীর সঙ্গে মান অভিমানে পিংকি আক্তার আত্মহত্যা করেছে। মরদেহ উদ্ধার করে জেলার মর্গে ময়না তদন্তের জন্য প্রেরণ করা হয়।