ঈশ্বরদীতে প্রকৌশলীকে পেটালেন যুবলীগকর্মী

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: পাবনার ঈশ্বরদীতে নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্ল্যান্ট কোম্পানি বাংলাদেশ লিমিটেডের প্রকৌশলী মাসুদ রানাকে (৩০) পেটালেন যুবলীগকর্মীরা। আহত মাসুদ রানাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার রাতে ঈশ্বরদী শহরের ওভারব্রিজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

মাসুদ রানা রাজশাহী দুর্গাপুর থানার মোকলেছুর রহমানের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঈশ্বরদী শহরের পশ্চিম পাশের ওভারব্রিজ এলাকায় আধিপত্য বিস্তার কেন্দ্র করে ২ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সমর্থকদের বিবদমান দুপক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। তখন সেখান দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় মাসুদ রানাকে লাঠিসোটা হাতে আসা কয়েকজন যুবক ধাওয়া করে।

আতঙ্কে তিনি দৌড় দিলে হামলাকারীদের একজন তার পায়ে লাঠি দিয়ে আঘাত করলে তিনি পড়ে যান। এর পর ৭-৮ জন মিলে লাঠিসোটা নিয়ে তার ওপর হামলা করা হয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় পথচারীরা রানাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক কাবেরী শাহ জানান, তার মাথা, ঘাড়, মুখ, হাত ও পায়ে আঘাতের চিহ্ন আছে। পুরো শরীরে কালশিটে রক্তাক্ত দাগ রয়েছে। এ ছাড়া বেশ রক্তক্ষরণও হয়েছে। সুস্থ হতে সময় লাগবে।

ঈশ্বরদী থানার ওসি বাহাউদ্দীন ফারুকী বলেন, লাঠিসোটা হাতের যুবকদের মধ্যে ২ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের নেতাকর্মীরা ছিলেন বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য অনুসারে, হামলাটি যুবলীগকর্মী সন্দেহের সূত্র ধরেই হয়েছে। আহতের পক্ষ থেকে মামলা বা আইনগত ব্যবস্থা নিতে চাইলে আমরা জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেব।

এ ব্যাপারে ২ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ইলিয়াস হোসেন বলেন, ‘শুনেছি স্থানীয় যুবকরা হামলা করেছে। যারাই এর সঙ্গে জড়িত, তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।’