টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত

কায়সার হামিদ মানিক: কক্সবাজারের টেকনাফে র‌্যাবের সাথে গোলাগুলির ঘটনায় এক ডাকাত নিহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে অস্ত্র ও গুলি।
জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিক্তিতে র‌্যাব জানতে পারে টেকনাফের আলোচিত শালবাগান রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন এলাকায় শীর্ষ রোহিঙ্গা ডাকাত দলের বেশ কয়েকজন সদস্য ক্যাম্পের ভিতরে অপরাধ সংঘটিত করার জন্য অবস্থান নিয়েছে।
সেই তথ্য অনুযায়ী ৪ ফেব্রুয়ারি (মঙ্গলবার) গভীর রাতে টেকনাফ র‌্যাব-১৫ সদস্যদের একটি দল অভিযানে গেলে ডাকাত দলের সদস্যরা র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষন শুরু করে। এতে র‌্যাবের ৩ সদস্য আহত হয়। এরপর আত্মরক্ষার্থে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। অবশেষে ৬/৭জন অস্ত্রধারী ডাকাত কৌশলে পালিয়ে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসার পর ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে র‌্যাব সদস্যরা এক ডাকাতকে উদ্ধার করে টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করে।
নিহত যুবক হচ্ছে, শীর্ষ রোহিঙ্গা ডাকাত গ্রুপের অন্যতম সদস্য ডাকাত ইলিয়াছ (৪০)। সে ২৬নং রোহিঙ্গা শিবিরে ডি-বল্কে বসবাসকারী মো. শফির পুত্র। এদিকে ঘটনাস্থল তল্লাশী করে র‌্যাব সদস্যরা দেশীয় তৈরী ১টি ত্রি কোয়ার্টার গান অস্ত্র, ১ টি ওয়ান শুটার গান ও ৪টি তাজা কার্তুজ উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।
এই অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করে টেকনাফ র‌্যাব-১৫ (সিপিসি-১) কোম্পানী কমান্ডার মির্জা শাহেদ মাহতাব (এক্স পিপিএম, বিএন) জানান, রোহিঙ্গা ডাকাত দলের সদস্যরা বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ড সংঘটিত করার জন্য ফের সক্রিয় হয়ে উঠেছে। তাদের সেই অপচেষ্টা এবং অস্ত্রধারী ডাকাত দলের সদস্যদের নির্মুল করার জন্য র‌্যাবের সাঁড়াশী অভিযান অব্যাহত থাকবে।