আক্কেলপুরে মাদক ব্যবসায় নিষেধ করায় যুবলীগ নেতার ওপর হামলা

আতিউর রাব্বী তিয়াস: জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে বিপুল চন্দ্র ঘোষ (৩০) নামে এক যুবলীগ নেতার ওপর হামলা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। পরে আহত অবস্থায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। উপজেলার রুকিন্দপুর কাঁচা বাজার এলাকার একটি খাবার হোটেলে আজ মঙ্গলবার দুপুরের দিকে এ ঘটনা ঘটে। বিপুল চন্দ্র রুকিন্দীপুর ইউনিয়নের দুই নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি বলে জানা গেছে। তিনি রুকিন্দীপুর ঘোষপাড়া গ্রামের বিধান চন্দ্র ঘোষের ছেলে। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, বাজারের একটি খাবার হোটেলে বিপুল, আলম ও বিদ্যুৎ একসঙ্গে খাবার খাচ্ছিলেন। ওই সময় রুকিন্দীপুর বাজার এলাকার শাহারুল ইসলামের ছেলে আলমগীর হোসেন ওই হোটেলে খাবার খেতে ঢোকেন। এ সময় বিপুলের সাথে আলমগীরের বাকবিতন্ডা হয়। একপর্যায়ে আলমগীর হোটেলের বাহির থেকে একটি বাঁশ দিয়ে বিপুলের মাথায় আঘাত করে। এতে বিপুলের মাথা ফেটে যায়। স্থানীয়রা বিপুলকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। স্থানীয় বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন বলেন, গুরুতর অবস্থায় বিপুলকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করি। শুনেছি তাকে আলমগীর নামে এক ব্যক্তি মেরেছে। রুকিন্দীপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ও ওই ইউনিয়নের এক নম্বর ওয়ার্ড সদস্য আনোয়ার হোসেন বাবু বলেন, বিপুল দুই নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি। তাকে এলাকার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেন অন্যায়ভাবে মেরেছে। মঙ্গলবার দুপুরে বিপুল আলমগীরকে এলাকায় মাদকের ব্যবসা করতে নিষেধ করায় তাকে সে এ হামলা করেছে। বিপুল চন্দ্র ঘোষ বলেন, আলমগীর এলাকায় শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। ইতিপূর্বে সে পুলিশের হাতে মাদকসহ ধরা খেয়ে জেলও খেটেছে। আমি তাকে আজ সামনে পেয়ে এলাকায় মাদকের ব্যবসা করতে নিষেধ করি। এতে সে আমার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে বেধরক পিটিয়ে আহত করে। এ ঘটনায় আমি থানায় অভিযোগ দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

এ ঘটনায় আলমগীর হোসেনের সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি। রুকিন্দীপুর ইউপি চেয়ারম্যান আহসান কবির এপ্লব বলেন, আলমগীর এলাকার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী।