বেলকুচিতে ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে

এম এ মুছা: সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। গত (০৩ ফেব্রুয়ারী) দুপরে উপজেলার বড়ধুল ইউনিয়নের দিঘুলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রীকে প্রধান শিক্ষক আব্দুল হাই স্কুলের পঞ্চম শ্রেণীসহ অন্যন্যা শ্রেণী ছুটি দিয়ে ঐ ছাত্রীকে অফিস কক্ষে থাকতে বলে। ঐ ছাত্রী গত বার্ষিক পরীক্ষায় অকৃতকার্য হলে একই ক্লাসে থেকে যায় এবং প্রধান শিক্ষক আব্দুল হাই ছাত্রীকে প্রস্তাব দেয় যে, তুমি পাশ করতে পারো নাই তুমি আমার নিকট একা প্রাইভেট পড় তাহলে পাশ করতে পারবে। কিন্তু ছাত্রী একা পড়তে রাজী হয়নি। স্কুলের সবাই চলে যাওয়ারর পর কক্ষে প্রধান শিক্ষক ছাত্রীকে পেয়ে যৌন হয়রানির চেষ্টা করে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই ছাত্রীর নিজ বাড়ী বেলকুচি পৌর এলাকার ক্ষিদ্রমাটিয়া গ্রামে। সে নানার বাড়ী বেলকুচির চরে থেকে দিঘুলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণীতে অধ্যয়ন করে। সে নানার বাড়ী গিয়ে বিষয়টি তার মামা-মামীকে বললে,পরে তার মামা-মামী বিষয়টি এলাকাবাসীকে জানালে ০৩ ফেব্রুয়ারী তারা বেলকুচি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করে।

এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক আব্দুল হাই জানান, তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার। একটি মহল তাকে হেয় প্রতিপন্ন করার লক্ষ্যে ষড়যন্ত্র করছে। এ বিষয়ে ঐ স্কুলের গভর্নিংবডির সভাপতি ও সাবেক ইউপি সদস্য আলতাফ হোসেনের সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তাকে পাওয়া যায়নি। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফজলুর রহমান জানান, বিষয়টি আমি অবহিত হয়েছি তদন্তপূর্বক ঘটনার সত্যতা পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। বেলকুচি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আনোয়ারুল ইসলাম জানান, এ সংক্রান্ত ব্যাপারে থানায় একটি মামালা হয়েছে, তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বেলকুচি উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিফাত-ই-জাহান জানান, বিষয়টি আমি থানা মারফৎ শুনেছি, তদন্তপূর্বক পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।