এনায়েতপুরে দিনে দুপুরে ফিল্মি স্টাইলে হামলা চালিয়ে দোকার ঘর ভাংচুর ও লুটপাট

মারুফা মির্জা: সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুর থানার রুপসী বাজারে সেনা সদস্যের মার্কেটে দিনে দুপুরে ফিল্মি স্টাইলে হামলা চালিয়ে দুটি দোকার ঘর ভাংচুর ও লুটপাট করা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকা জুড়ে ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি করেছে। এদিকে এ সন্ত্রাসী হামলায় ঐ গ্রামের মৃত খোরশেদ আলমের ছেলে প্রভাবশালী বিএনপি নেতা মিরাজুল ইসলাম স্বপন ও তার ৩ ভাইদের দায়ী করে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে ভুক্তভোগী। বাজারের ব্যবসায়ী ও অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, রুপসী বাজারে ২৮ শতাংশ জমিতে সেনা সদস্য শহিদুল ইসলাম ২৩টি দোকান করে মারুফ মার্কেট পরিচালনা করে আসছিল। তার মৃত্যুর পর মার্কেটটি একমাত্র সন্তান আসলাম পারভেজ মারুফ দেখভাল করছে। অপরদিকে প্রতিপক্ষ বিএনপি নেতা মেরাজুল ইসলাম স্বপন ও তার ভাইয়েরা পাশেই নিজেদের ৩ শতক জায়গা সহ সরকারী ওয়াপদা বাধের আরো জায়গা দখল করে আরেকটি মার্কেট করে দোকান ভাড়া দেয়। দুই মার্কেটের বিবাদমান জায়গা নিয়ে বেশ কিছু দিন ধরে তাদের মধ্যে দ্বন্ধ চলে আসছিল। গত রোববার বিকেলে হঠাৎ মেরাজুল ইসলাম স্বপন (৫০) ও তার ছোট ভাই শফিকুল ইসলাম লিটন (৪৬), শরিফুল ইসলাম বিপ্লব (৪২), তপন হোসেন (৩৬) এর নেতৃত্বে স্বশস্ত্র সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়। তখন মার্কেটের সামনে থাকা দুটি দোকান ও ভিতরে রাখা হার্ডওয়ারের যাবতীয় জিনিসপত্র ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়ে চলে যায় তারা। আধা ঘন্টা ব্যাপী তাদের ঐ হামলা চলাকালে পুরো বাজারের ব্যবসায়ীদের মাঝে আতংকৃত ছড়িয়ে পড়ে। দোকান-পাঠ বন্ধ করে দিয়ে সবাই পালাতে থাকে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ ব্যাপারে মারুফ মার্কেটের মালিক আসলাম পারভেজ মারুফ অভিযোগ করে বলেন, প্রভাবশালী বিএনপি নেতা মেরাজুল ইসলাম স্বপন ও তার ভাইদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও বালু দস্যুতার কারনে এলাকায় সবার জন্য আতংক। তার মার্কেটের মাত্র ৩ শত নিজের জায়গা হলেও সরকারী জায়গা দখল করে সে ১২/১৪ শতক জায়গা জুড়ে মার্কেট করেছে। এখন আমাদের জায়গা দখল করতে ২টি দোকান ও ২ লাখ টাকার মালামাল ভাংচুর, লুটপাট করেছে। আমরা তাদের কাছে অসহায় হয়ে পড়েছি। আমি এলাকার ঐসব সন্ত্রাসীদের দ্রুত শান্তি কামনা করছি। তবে হামলার বিষয় স্বীকার করে মেরাজুল ইসলাম স্বপন জানান, আমরা ঘটনাটি ঘটালেও তা মিসাংসার জন্য এলাকাবাসী উদ্যোগ নিয়েছে। এদিকে মার্কেটে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় এনায়েতপুর থানায় স্বপন ও তার ৪ ভাইকে দায়ী করে আসলাম পারভেজ মারুফ একটি অভিযোগ দায়ের করেছে। এ ব্যাপারে এসআই দারেশ আলী জানান, ঘটনাটি জানা মাত্রই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। প্রাথমিক তদন্তে স্বপনের নেতৃত্বে হামলার ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Previous articleঅবশেষে রানুর পুড়ে যাওয়া বাড়ি গড়তে মিলল টিন ও নগদ অনুদান
Next articleদেশে আরও ৩ জন করোনা রোগী শনাক্ত
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।