মাদারীপুরে আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষ- গোলাগুলি, ৫ জন গুলিবিদ্ধ

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: মাদারীপুর সদর উপজেলার পূর্ব রাস্তি এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। এসময় প্রতিপক্ষের গুলিতে ৫জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বলে জানা গেছে। আজ রবিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

গুলিবিদ্ধরা হলেন- পূর্বরাস্তি এলাকার সালাম সরদারের ছেলে রাজ্জাক সরদার (৩২), মজিবর সরদারের ছেলে মামুন সরদার (৩৫), ঘেসু বেপারীর ছেলে পলাশ বেপারী (৩৫), মজিবর সরদারের ছেলে সাদ্দাম সরদার (৩২), ফিরোজ সাহী (৪২) এছাড়াও আরও ৫ জন আহত হয়েছে। গুলিবিদ্ধ ৫ জন সদর হাসপাতালে ভর্তি আছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এখন পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর সদর উপজেলার পূর্ব রাস্তি এলাকায় দীর্ঘদিন ধরেই জেলা যুবলীগের সহ-সম্পাদক বিল্লাল মোল্লার সাথে একই এলাকার উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রাজু হাওলাদারের দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এই দ্বন্দ্বের জের ধরেই আজ রবিবার দুপুরে দুই পক্ষের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় পক্ষের ১০জন আহত হয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিগত রাস্তি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রাজু হাওলাদার ও বেল্লাল মোল্লা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। নির্বাচনে অবশ্য দু’জনের কেউ বিজয়ী হতে পারেননি। এরপর থেকেই দু’জনের মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মাঝে মধ্যে চরম উত্তেজনা দেখা দিত। এ আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করেই দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
মাদারীপুর সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে কর্তব্যরত ডাক্তার মফিজুল ইসলাম লেলিন বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় গুলিবিদ্ধ ৫ জন সদর হাসপাতালে ভর্তি আছে।
এদের মধ্যে পলাশ বেপারী, মামুন সরদার, সাদ্দাম, বাবু ফকিরসহ ৫জন মাদারীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদরুল আলম মোল্লা বলেন, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে এই সংঘর্ষ। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। আমরা প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি বিল্লাল মোল্লার লাইসেন্স করা বন্দুক থেকেই গুলি করা হয়েছে।