পাবনায় দরিদ্র-কর্মহীন প্রতিবন্ধীদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

কামাল সিদ্দিকী: সাম্প্রতিক সময়ে করোনা ভাইরাস এর প্রভাবে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা অনেক ঝুঁকি নিয়ে এবং অনেক প্রতিবন্ধী ব্যক্তি অর্ধাহারে-অনাহারে দিন কাটাচ্ছে। এরই প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ বিসনেস এন্ড ডিজএবিলিটি নেটওয়ার্ক (বিবিডিএন) এর আর্থিক সহযোগিতায় অ্যাকসেস বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন এর তত্ত্বাবধানে প্রতীক মহিলা ও শিশু সংস্থা পাবনা জেলার সদর উপজেলায় আজ বৃহস্পতিবার (৭ মে) ২৫টি দরিদ্র ও কর্মহীন প্রতিবন্ধী ব্যক্তির পরিবারের (১০০ জন ব্যক্তি) মাঝে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়। খাদ্য সহায়তার মধ্যে ছিল পরিবার প্রতি ১৫ কেজি চাল, ২ কেজি ডাল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি তেল, ৫০০ গ্রাম লবণ ও ২টি সাবান। উপহার সামগ্রী পেয়ে অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে শারীরিক প্রতিবন্ধী মোঃ রাজেন বলেন, “এই প্রথম কোন সহযোগিতা পেলাম, নিজেকে অনেক খুশি লাগছে।” শারীরিক প্রতিবন্ধী জোসনা বেগম বলেন, অনেক চেষ্টা করেও কোথাও কোন খাবার পাইনি। এই খাদ্য সামগ্রী পেয়ে আমি খুব আনন্দিত।” শারীরিক প্রতিবন্ধী মোঃ আব্দুল্লাহ বলেন, “আমরা অসহায় অবস্থায় ছিলাম। আপনাদের এই সহযোগিতা আমাদের অনেক উপকার করবে।” এ ব্যাপারে বিবিডিএন এর নির্বাহী পরিচালক মুরতেজা রাফি খান তাঁর অনুভূতি ব্যক্ত করে বলেন, “বিবিডিএন এর জন্মলগ্ন থেকেই আমরা নিরলস ভাবে প্রতিবন্ধী মানুষদের অর্থনৈতিক উন্নয়নের মাধ্যমে তাদের ভাগ্য উন্নয়ন এর জন্য কাজ করে যাচ্ছি। আজ জাতির এহেন ক্রান্তিলগ্নে অসহায় এসব প্রতিবন্ধী মানুষদের পাশে দাঁড়াতে পেরে আমরা গর্বিত। তিনি বিবিডিএন এর সহযোগী অ্যাকসেস বাংলাদেশ ফাউন্ডেনশকে ধন্যবাদ জানান।” অ্যাকসেস বাংলাদেশ এর নির্বাহী পরিচালক আলবার্ট মোল্লা বলেন, “করোনা ভাইরাসের কারণে সমাজের প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা সবচেয়ে বেশি স্বাস্থ্য ও আর্থিক ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। বিবিডিএন আজ এ কাজে এগিয়ে এসেছে এজন্য তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই এবং সমাজের সকলকে একাজে এগিয়ে আসার আহবান জানাই।” প্রতীকের নির্বাহী পরিচালক এস এম সাইফুর রহমান তাঁর অনুভূতি ব্যক্ত করে বলেন, “পাবনা জেলার হত দরিদ্র ২৫ জন প্রতিবন্ধী ব্যক্তি উপহার সামগ্রী পেয়ে অত্যন্ত আনন্দিত। অনেক চেষ্টা করেও কোন জায়গা থেকে তারা কোন খাদ্য সামগ্রী পায়নি। এমন সময় বাংলাদেশ বিসনেস এন্ড ডিজএবিলিটি নেটওয়ার্ক এবং অ্যাকসেস বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের প্রতি প্রতীক মহিলা ও শিশু সংস্থার পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।”