পাঁচবিবিতে ইউএনও বরমান হোসেনের হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ বন্ধ

প্রদীপ অধিকারী: জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্টের হস্তক্ষেপে নবম শ্রেণি মাদ্রাসা পড়ুয়া এক শিক্ষার্থীর বাল্য বিবাহ বন্ধ করে দিয়েছেন। আজ বুধবার দুপুর ২টায় বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে বাল্য বিবাহ বন্ধ করেন ইউএনও বরমান হোসেনে । ঘটনাটি উপজেলার ধরঞ্জী ইউনিয়নের পাড়ইল গ্রামে। জানা গেছে, উপজেলার ধরঞ্জী ইউনিয়নের পাড়ইল গ্রামের জনৈক আবু সুফিয়ানের নবম শ্রেণির মাদ্রাসা পড়ুয়া ছাত্রীর সঙ্গে জয়পুরহাট সদর উপজেলার রাচন্দ্রপুর (সাতবাড়িয়া) গ্রামের মোতাহার আলীর ছেলে মামিদুল হকের (২২) বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার আয়োজন করেন মেয়ের পিতা। ইউএনও বরমান হোসেন এমন খবর পেয়ে নিজেই মেয়ের বাড়ীতে বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হলে বরযাত্রী লোকজন পালিয়ে যায়। এসময় মেয়ে অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় আনুষ্ঠানিকতা সহ বাল্য বিবাহের সকল কার্যক্রম বন্ধ করে দেন তিনি এবং বাল্য বিবাহ থেকে বিরত থাকবেন মর্মে মেয়ের অভিভাবকের মুচলেকা নেন। পরে বিয়ের অনুষ্ঠান আয়োজনের ডেকোরেশন সরমজাদি গুলো জব্দ করে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদে জমা রাখেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভ’মি) আশিক রেজা, উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা সেলিম ও স্থানী ইউপি সদস্য মনোয়ার হোসেন প্রমূখ।