‘ধর্মের ভাই ডাকার পরও আতাউর আমাকে ধর্ষণ করে’

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলায় এক গৃহবধূকে ধর্ষণের পর শাশুড়িকে মারধর করে পালালো আতাউর রহমান (২৪) নামের এক যুবক।

গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নের পূর্বধনীরাম গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। আতাউর রহমান ওই গ্রামের জাহেদুল ইসলাম নোকাপের ছেলে।

ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ জানান, দীর্ঘদিন ধরে তার স্বামী কাজের জন্য কুমিল্লায় অবস্থান করছেন। স্বামী বাড়িতে না থাকার সুযোগে আতাউর রহমান প্রায়ই গৃহবধূকে মোবাইল ফোনে কুপ্রস্তাব দিতো। এতে রাজি না হওয়ায় গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১২ টার দিকে আতাউর কৌশলে দরজা খোলে ওই গৃহবধূর ঘরে প্রবেশ করে। পরে মুখ চেপে ধরে তাকে মারপিট ও ধর্ষণ করে। গৃহবধূর চিৎকার শুনে পাশের ঘর থেকে এসে শাশুড়ি ধর্ষক আতাউরকে আটকের চেষ্টা করেন। এ সময় আতাউর গৃহবধূর বৃদ্ধা শাশুড়িকে মারপিট করে পালিয়ে যান।

গৃহবধূ আরও জানান, আতাউরের মারপিটে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্নের সৃষ্টি হয়েছে। মারপিটের সময় তার নাকের ফুল ভেঙে গেছে। ঘটনার সময় আতাউরকে ধর্মের ভাই বলে ডেকেও রেহাই পায়নি গৃহবধূ। তিনি নির্যাতনকারী আতাউরের দৃষ্টান্তমূলক বিচার চান।

ফুলবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাজীব কুমার রায় গণমাধ্যমকে জানান, পূর্বধনীরাম গ্রামে এক গৃহবধূ ধর্ষণের শিকার হয়েছে; খবরটি শোনার পরপরই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।