সাহারুল হক সাচ্চু: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার প্রবীণ এক দম্পতি। প্রায় ৯৪ বছর বয়সী বরাত আলী। আর তার স্ত্রী আমেনা খাতুনের বয়স প্রায় ৮০ বছর। এ দম্পতির কেউ পায়না সরকারি বয়স্ক ভাতা। ভাতা পাবেন এমন আশ্বাস পেয়েছেন বছরের পর বছর ধরে বহুবার। তবে তা আর দু’জনের কারো ভাগ্যে জোটেনি। উল্লাপাড়া উপজেলার সদর উল্লাপাড়া ইউনিয়নের নাগরৌহা গ্রামের নি¤œ মধ্যবিত্ত বরাত আলী কৃষি কাজ করতেন। জাতীয় পরিচয় পত্রে তার জন্ম তারিখ ১৯ অক্টোবর ১৯২৬ সাল। এ হিসেবে প্রায় ৯৪ বছর বয়সী বরাত আলী এখন আর বয়সের ভারে তেমন হাঁটা চলা করতে পারেন না। নিজ বসত বাড়ীতেই ঘর আর উঠান আঙ্গীনায় শুয়ে বসে দিন কাটে। এদিকে তার স্ত্রী আমেনা খাতুনের জন্ম জাতীয় পরিচয় পত্রে ২০ আগষ্ট ১৯৪০ সাল। তার বয়স প্রায় ৮০ বছর। এ দম্পতির ঘরে চার ছেলে সন্তান রয়েছে। এরা সবাই আলাদা সংসার করছে। বিগত ক’বছরে এ দম্পতি সরকারের বয়স্ক ভাতা পেতে এলাকার মেম্বর এর কাছে বহুবার ধন্না দিয়েছে বলে জানান। আর যতবারই গেছেন, বলা হয়েছে ভাতা পাবেন। প্রতিবেদককে আমেনা খাতুন বলেন, তারা বয়স্ক ভাতা পেলে নিজেদের হাত খরচ ও ঔষধ পত্রাদি কিনতে সন্তানদের কাছে টাকা চাইতে হবে না। এ দম্পতির সন্তানেরা জানান, তাদের বাবা ও মা বয়স্ক ভাতা পেলে খুবই খুশি হবেন। সদর উল্লাপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুস সালেক জানান, এ দম্পতি’র বিষয়টি এলাকার মেম্বর কিংবা অন্য কেউ তাকে জানায়নি। আর ভাতা পেতে আগ্রহীদের এর আগে ইউনিয়ন পরিষদে প্রচার প্রচারনা চালিয়ে ডাকা হয়েছিল। এ দম্পতি ভাতা যেন পায় এর জন্য উদ্যোগ নেবেন। উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আব্দুল মোত্তালিব বলেন, সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন কমিটির মাধ্যমে এ দম্পতির তথ্যাদি পেলে ভাতা পেতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন।

Previous articleদালালবাজার-মীরগঞ্জ সড়ক: সংস্কার না হওয়ায় হাটা চলাও দায়
Next articleভূঞাপুরে পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় শিশুসহ নিহত ২
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।